‘অপারেশন হিট ব্যাক’

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

মৌলভীবাজারে দুটি জঙ্গি আস্তানার মধ্যে নাসিরপুরের আস্তানাটিতে সোয়াটের অভিযান বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার পর শুরু হয় ‘অপারেশন হিট ব্যাক’। সোয়াটের দায়িত্বশীল কর্মকর্তারা জানান, সন্ধ্যায় সোয়াট টিম জঙ্গিদের অবস্থানরত বাসায় অভিযান শুরু করে।

পরে রাত ১০টার দিকে অভিযান আপাতত স্থগিত করা হয়।  বৃহস্পতিবার সকালে আবারো অভিযান শুরু হবে বলে একাধিক সূত্র জানিয়েছে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত  সোয়াট বাহিনী নাসিরপুরে অবস্থান করছিল। ধারণা করা হচ্ছে, সেখানকার অভিযান শেষের পর বড়হাটে যাবে সোয়াট।

১৪৪ ধারা জারি থাকায় কাউকে ওই বাড়ির আশপাশে ঘেষতে দেয়া হচ্ছে না।সন্ধ্যা সাড়ে সাতটা পর্যন্ত জঙ্গি আস্তানা থেকে গুলির শব্দ আসলেও পরে তা থেকে যায়।’অপারেশন হিট ব্যাক’ শুরুর পর ওই বাড়িটি অনেকটা সুনশান, পৌরসভার বড়হাট এলাকায় জঙ্গিদের অবস্থানরত বাড়িটিও এখন অনেকটা নীরব।

সূত্র জানায়, এই দুই বাড়ির মধ্যে দূরত্ব প্রায় ২০ কিলোমিটার। বাড়ি দুটি লন্ডন প্রবাসী সাইফুল ইসলামের। দুটো বাড়িই ভাড়া দেয়া। কোনোটিতে মালিক পক্ষের কেউ থাকেন না।

সিলেটে ১১১ ঘণ্টার অভিযান শেষ হতে না হতেই গতকাল মঙ্গলবার রাত থেকে মৌলভীবাজারে সন্দেহে থাকা দুটি জঙ্গি আস্তানা ঘেরাও করে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। আস্তানা দুটির মধ্যে সদর উপজেলার খলিলপুর ইউনিয়নের নাসিরপুরে একটি। অন্যটি মৌলভীবাজার পৌরসভার বড়হাট এলাকায়।

উল্লেখ্য, অভিযান নিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। তিনি বলেন, “আতঙ্কিত হওয়ার, ভয় পাওয়ার কিছু নেই। ১৬ কোটি মানুষের দেশে ৫০ জন জঙ্গি থাকতে পারে। পুরো বিশ্বেই এখন জঙ্গিবাদ মাথাচাড়া দিচ্ছে। তবে এদের দমন করার ক্ষমতা সরকারের আছে। যে কোনও মূল্যে জঙ্গিদের দমন করতে সরকার বদ্ধ পরিকর।”

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “প্রাথমিকভাবে জানা যায় মৌলভীবাজারের শহরের আস্তানাটিতে তিন-চারজন এবং নাসিরপুরের আস্তানায় আরও দু চারজন বেশি জঙ্গি থাকতে পারে। সেখানে নারী জঙ্গি আছে বলে সন্দেহ করো হচ্ছে। সেখানে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী মোতায়েন করা রয়েছে। ঢাকা থেকে সোয়াট ও বোম ডিসপোজাল ইউনিট মৌলভীবাজারের উদ্দেশে রওনা দিয়েছে। প্রয়োজনে সেনাবাহিনী নামানো হবে।”

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

sixteen − 1 =