আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা এ্যমনেস্টি ইন্টারন্যাশন্যাল মিঠুন চাকমা হত্যার তদন্ত দাবি করেছে

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা এ্যমনেস্টি ইন্টারন্যাশন্যাল ইউপিডিএফ সংগঠক ও পিসিপি’র সাবেক সভাপতি মিঠুন চাকমা হত্যার তদন্ত দাবি করেছে। গতকাল বুধবার,৩ জানুয়ারি ২০১৮) এক বিবৃতিতে সংগঠনটির আদিবাসী অধিকার গবেষক ক্রিস চ্যাপম্যান বাংলাদেশ কর্তৃপক্ষের কাছে এই দাবি জানান। তিনি বলেন, ‘যার বিরুদ্ধে (হত্যার) বিশ্বাসযোগ্য সাক্ষ্যপ্রমাণ পাওয়া যাক না কেন তাকে আন্তর্জাতিক মানদণ্ডের যথাযথ প্রক্রিয়া অনুসরণ করে শাস্তি দেয়ার ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে হবে।’

মিঠুন চাকমাকে একজন ‘আদিবাসী মানবাধিকার কর্মী’ হিসেবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘মিঠুনকে অভিযোগ গঠন ব্যতিরেকে ২০১৬ সালের ১২ জুলাই আটক করা হয় এবং একই বছর ১৮ অক্টোবর জামিনে মুক্তি না পাওয়া পর্যন্ত তিন মাস ধরে তাকে সেভাবে রাখা হয়।’

মিঠুন চাকমার বিরুদ্ধে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনে (আইসিটি) ফৌজদারী মামলাসহ বহুবিধ মামলা দায়েরের বিষয়টিও বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয় এবং বলা হয়, ‘এ্যমনেস্টি এ বিষয়ে উদ্বিগ্ন যে, এ ধরনের মামলা এমন একটি পরিবেশ সৃষ্টিতে সাহায্য করে যেখানে বাংলাদেশে মানবাধিকার কর্মীরা মানবাধিকার লঙ্ঘনের ব্যাপারে মুখ খুলতে ভয় পান।’

উল্লেখ্য, এ্যমনেন্টি ইন্টারন্যাশন্যালের ‘কট্ বিটুইন ফিয়ার এন্ড রিপ্রেসন: এটাক্স অন ফ্রিডম অফ এক্সপ্রেশন ইন শিরোনামে গত বছর প্রকাশিত রিপোর্টে মিঠুন চাকমার আটকের বিষয়টিও গুরুত্ব সহকারে স্থান পেয়েছিল।

মিঠুন চাকমা পাহাড়ের জুম আদিবাসীদের থিংকট্যাংক নামে পরিচিত। নটরডেম  কলেজ থেকে এইচ এস সি পাশ করেন। নিহত মিঠুন চাকমা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশুনা এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতার সুযোগ প্রাপ্ত ।

মামলার হাজিরা দিয়ে খাগড়াছড়িতে ফিরে শহরের গোলাবাড়ি এলাকায় নিজ বাসার সামনে ছোট ভাইয়ের সাথে দাঁড়িয়ে কথা বলছিলেন পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের সাবেক সভাপতি মিঠুন চাকমা। কিন্তু ছোট ভাইয়ের সঙ্গে কথা শেষ না হতেই দু’টি মোটর সাইকেলে করে আসা অস্ত্রধারীরা মিঠুন চাকমাকে তুলে নিয়ে গুলি করে ফেলে যায়। মিঠুন ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ) এর খাগড়াছড়ি জেলা সাংগঠনিক সম্পাদক ও ইউপিডিএফ-এর ছাত্র সংগঠন পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের সাবেক সভাপতি এবং সিএচটি টুয়েন্টিফোর ডটকমের সম্পাদক ছিলেন।

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

5 + 3 =