আন্তর্জাতিক স্পেস স্টেশনে ‘গলদ’:নাসার ভুল ধরালো ১৭ বছরের কিশোর

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

১৭ বছরের ব্রিটিশ ছাত্রের নজরে এল নাসার তথ্য বিভ্রাট! তথ্য বিভ্রাটের বিষয়টি আপাত দৃষ্টিতে আবিষ্কার করার পরই নাসা’কে (ন্যাশনাল এরোনটিক্স এবং স্পেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন) মেল পাঠায় ১৭ বছরের কিশোর মাইলস সলমন ।

ইন্টারন্যাশনাল স্পেস স্টেশনে যে রেডিয়েশন সেন্সর রয়েছে তা সঠিক ভাবে কাজ করছে না, আর এই কারণেই নাসা’র তথ্যে বিভ্রাটের উদয়।

জবাবে নাসা’র পক্ষ থেকে ১৭ বছর বয়সী কিশোরের এই অনুসন্ধানকে ‘প্রশংসা’ করা হয়েছে; একইসঙ্গে মাইলস সলমনকে আমন্ত্রণ জানিয়েছে নাসা।

স্কুলের পদার্থবিদ্যার প্রজেক্ট করতে গিয়েই নাসা’র ভুল সনাক্ত করল ১৭ বছরের কিশোর মাইলস সলমন।

১৭ বছরের ব্রিটিশ কিশোরের এই দাবি পরীক্ষা নিরীক্ষা করে নাসা জানিয়ে দিয়েছে মাইলস সলমনের দাবি ঠিক। ইন্টারন্যাশনাল স্পেস স্টেশনে যে রেডিয়েশন সেন্সর রয়েছে তা ‘ভুল তথ্য’ ক্যাপচার করছে, একথা স্বীকার করে নিয়েছে ন্যাশনাল এরোনটিক্স এবং স্পেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন।

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

4 × 4 =