আসুন প্রেসক্লাব নির্বাচনে আমরা অশুভ শক্তির বিরুদ্ধে দাঁড়াই-মুহম্মদ শফিকুর রহমান

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

সকল অশুভ শক্তির বিরুদ্ধে দাঁড়িয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশকে স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে চেয়েছিলেন। তারই একটি পদক্ষেপ হল জাতীয় প্রেসক্লাবকে বর্তমান জমি দান। সেই জমির ওপর তারই কন্যা প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা দেশরত্ন শেখ হাসিনা ৩১তলা বঙ্গবন্ধু মিডিয়া কমপ্লেক্স নির্মাণ করে দিচ্ছেন। সেই লক্ষ্যে গত দু’বছর ধরে বর্তমান কমিটি কাজ করে চলেছেন। এতেও চিহ্নিত অশুভ শক্তি, কালো টাকার দানবদের বিরুদ্ধে লড়াই করে আজকের অবস্থানে এসেছি।

আমাদের ক্লাবের সাধারণ সদস্য অর্থাৎ পুরনো এবং নতুন সদস্যদের প্রতি আমি আমার অন্তরের অন্তস্থল থেকে কৃতজ্ঞতা জানাই তারা এই যুদ্ধে প্রেসক্লাবের পাশে ছায়ার মত লেগে থেকে সাহস ও শক্তি যুগিয়েছেন। রাজাকার মুক্ত করতে আমরা সবাই সব বিভেদ ভুলে গিয়ে কাজ করছি এবং রাজাকারদের বিরুদ্ধে জয়ী হয়েছি। আমাদের এই বিজয় দ্বিতীয়বারের মত মুক্তিযুদ্ধের জয়ের সঙ্গে তুলনীয়। আমরা এই প্রেসক্লাব থেকে রাজাকারদের বিতাড়িত করতে পেরেছি। তারপরও ছদ্মবেশী কিছু রাজাকার এখনো লুকিয়ে আছে। প্রেসক্লাবের সভাপতি হিসেবে আমি ও আমার সহযোদ্ধারা প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি আগামী দিনে এই প্রেসক্লাবকে চিরতরে মুক্তিযুদ্ধ বিরোধী শক্তি ও রাজাকার মুক্ত করবোই করবো।

৩১ তলা জাতীয় প্রেসক্লাব বঙ্গবন্ধু মিডিয়া কমপ্লেক্স ভবনের নকশা
৩১ তলা জাতীয় প্রেসক্লাব বঙ্গবন্ধু মিডিয়া কমপ্লেক্স ভবনের নকশা

বঙ্গবন্ধুর দেয়া জায়গা এবং আমাদের স্বপ্নের ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতিশ্রুতির বঙ্গবন্ধু মিডিয়া কমপ্লেক্সের প্রেসক্লাব হবে আধুনিক, মুক্তবুদ্ধিসম্পন্ন ও পেশাদার সাংবাদিকদের আশ্রয়স্থল, আবাস স্থল। আমরা সেই লক্ষ্যেই দিনরাত কাজ করে চলেছি। এ পথে আমাদের অনেক ষড়যন্ত্র চক্রান্ত অতিক্রম করতে হয়েছে। বাইরের শত্রু যেমন ছিল তেমন ঘরের।

সকল অশুভ শক্তির বিরুদ্ধে দাঁড়িয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশকে স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে চেয়েছিলেন। তারই একটি পদক্ষেপ হল জাতীয় প্রেসক্লাবকে বর্তমান জমি দান। সেই জমির ওপর তারই কন্যা প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা দেশরত্ন শেখ হাসিনা ৩১তলা বঙ্গবন্ধু মিডিয়া কমপ্লেক্স নির্মাণ করে দিচ্ছেন। সেই লক্ষ্যে গত দু’বছর ধরে বর্তমান কমিটি কাজ করে চলেছেন। এতেও চিহ্নিত অশুভ শক্তি, কালো টাকার দানবদের বিরুদ্ধে লড়াই করে আজকের অবস্থানে এসেছি।

আমাদের ক্লাবের সাধারণ সদস্য অর্থাৎ পুরনো এবং নতুন সদস্যদের প্রতি আমি আমার অন্তরের অন্তস্থল থেকে কৃতজ্ঞতা জানাই তারা এই যুদ্ধে প্রেসক্লাবের পাশে ছায়ার মত লেগে থেকে সাহস ও শক্তি যুগিয়েছেন। রাজাকার মুক্ত করতে আমরা সবাই সব বিভেদ ভুলে গিয়ে কাজ করছি এবং রাজাকারদের বিরুদ্ধে জয়ী হয়েছি। আমাদের এই বিজয় দ্বিতীয়বারের মত মুক্তিযুদ্ধের জয়ের সঙ্গে তুলনীয়। আমরা এই প্রেসক্লাব থেকে রাজাকারদের বিতাড়িত করতে পেরেছি। তারপরও ছদ্মবেশী কিছু রাজাকার এখনো লুকিয়ে আছে। প্রেসক্লাবের সভাপতি হিসেবে আমি ও আমার সহযোদ্বারা প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি আগামী দিনে এই প্রেসক্লাবকে চিরতরে মুক্তিযুদ্ধবিরোধী শক্তি ও রাজাকার মুক্ত করবোই করবো।

বঙ্গবন্ধুর দেয়া জায়গা এবং আমাদের স্বপ্নের ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতিশ্রুতির বঙ্গবন্ধু মিডিয়া কমপ্লেক্সের প্রেসক্লাব হবে আধুনিক, মুক্তবুদ্ধিসম্পন্ন ও পেশাদার সাংবাদিকদের আশ্রয়স্থল, আবাস স্থল। আমরা সেই লক্ষ্যেই দিনরাত কাজ করে চলেছি। এ পথে আমাদের অনেক ষড়যন্ত্র চক্রান্ত অতিক্রম করতে হয়েছে। বাইরের শত্রু যেমন ছিল তেমন ঘরের।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সেসবে কর্ণপাত না করে নিজে আধুনিক ৩১ তলা বঙ্গবন্ধু মিডিয়া কমপ্লেক্সের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেছেন। শুধু তাই নয় সর্বশেষ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করতে গেলে আমি এই কমপ্লেক্সের নির্মাণ নিয়ে দুশ্চিন্তার কথা জানালে তিনি সাহস দিয়ে বলেছেন, “ভাববার প্রয়োজন নেই। ” আসলেই ভাবনার প্রয়োজন নেই। বিদেশি সাহায্য প্রত্যাখ্যান করে যখন পঞ্চাশ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে বিশ্বের অন্যতম দীর্ঘ সেতু নির্মাণ করেছেন তাহলে সাংবাদিকদের দুশ্চিন্তার কারণ নেই।

আসুন আমরা সবাই যে যার জায়গা থেকে সব রকম ভেদাভেদ ভুলে গিয়ে স্বাধীনতা বিরোধী অশুভ শক্তি আর কালো করপোরেট ছোবলের বিরুদ্ধে এক ছাতার নীচে অবস্থান নেই। রুখে দাড়াই।

৩১ ডিসেম্বর প্রেসক্লাবের নির্বাচন। এই নির্বাচনে আপনার সুচিন্তিত মত ও একটি ভোট আমাদের সাহস জোগাবে। আমরা যে কাজ করেছি এবং ৩১তলা বঙ্গবন্ধু মিডিয়া কমপ্লেক্স নির্মানসহ চলমান উন্নয়ন ও সংস্কার কাজে আমাদের শক্তি জোগাবে। দায়িত্ব নেয়ার পর থেকে ১৯ মাসে আমরা ৬’শ ৪৮জন নতুন সদস্য করেছি। আপনাদের ভোটে পুননির্বাচিত হলে সদস্যপদ প্রদান অব্যাহত রাখব।

আসুন এই নির্বাচনে আমাদের ফোরামকে নির্বাচিত করে মাননীয় প্রধামন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা দেশরত্ন শেখ হাসিনার সাথে মূলধারার অগ্রযাত্রায় শরীক হই। আমরা সত্যের পথে চলেছি। রবীন্দ্রনাথের ভাষায় বলতে হয়, “সত্য যে কঠিন/ কঠিনেরে ভালোবাসিলাম/ সে কখনো করে না বঞ্চনা…”।

জাতীয় প্রেস ক্লাব সভাপতি মুহম্মদ শফিকুর রহমান
জাতীয় প্রেস ক্লাব সভাপতি শফিকুর রহমান

 

 

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

twelve − 9 =