ঋণ কেলেংকারি মামলায় তানভীর-জেসমিনের বিচার শুরু

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

সোনালী ব্যাংকের ঋণ জালিয়াতির ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে হল-মার্ক গ্রুপের চেয়ারম্যান জেসমিন ইসলাম ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক তানভীর মাহমুদের বিচার শুরুর আদেশ দিয়েছে আদালত।

সোনালী ব্যাংকের ঋণ জালিয়াতির ঘটনায় করা দুটি মামলায় জেসমিন ইসলাম ও তানভীর মাহমুদসহ অন্য আসামিদের বিরুদ্ধে এবং সম্পদের বিবরণী জমা না দেয়ার মামলায় জেসমিন ইসলামের বিরুদ্ধে আদালত আজ বুধবার অভিযোগ গঠন করে। এই দুটি মামলার সাক্ষ্য গ্রহণের দিন ধার্য করা হয়েছে আগামী ৩ মার্চ।

আজ বুধবার ঢাকার মহানগর দায়রা জজ কামরুল হোসেন মোল্লা বিচার শুরুর এই আদেশ দেন।

দেশের বৃহত্তম এই ঋণ কেলেঙ্কারির ঘটনায় বিগত ২০১২-এর ৪ অক্টোবর হলমার্ক গ্রুপের এমডি তানভীর হোসেন ও চেয়ারম্যান জেসমিন ইসলামসহ মোট ২৭ জনের বিরুদ্ধে ১১টি মামলা দায়ের করে দুদক। মামলায় তাদের বিরুদ্ধে ২ হাজার ৬৮৬ কোটি ১৪ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ করা হয়।

সোনালী ব্যাংকের রূপসী বাংলা হোটেল শাখা থেকে তিন হাজার ৬০৬ কোটি ৪৮ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে মোট ৩৮টি মামলা দায়ের করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। এর মধ্যে প্রায় ৩৭২ কোটি টাকা আত্মসাতের দায়ে ২৭টি মামলা করা হয়। গত বছরের ৭ অক্টোবর ফান্ডেড (স্বীকৃত বিলের বিপরীতে দায়) এক হাজার ৫৬৮ কোটি ৩৪ হাজার ৮৭৭ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ২৬ জনের বিরুদ্ধে ১১টি মামলার অভিযোগপত্র আদালতে জমা দেওয়া হয়। এসব মামলার সব কটিতেই জেসমিন ইসলাম আসামি।

সোনালী ব্যাংকের ঋণ জালিয়াতির ঘটনায় বাকি ৯টি মামলায় অভিযোগ গঠনের বিষয়েও আগামী ৩ মার্চ আদেশের জন্য দিন ধার্য করেছে আদালত।

মামলাটির আসামি প্রতিষ্ঠানটির মালিক তানভীর মাহমুদ, তানভীরের ভায়রা ও হলমার্ক গ্রুপের জিএম তুষার আহমেদ, সোনালী ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ের জিএম মীর মহিদুর রহমান, দুই ডিজিএম শেখ আলতাফ হোসেন (সাময়িক বরখাস্ত) ও মো. সফিজউদ্দিন আহমেদ (সাময়িক বরখাস্ত) কারাগারে আছেন।

জামিনে আছেন তানভীরের স্ত্রী ও গ্রুপের চেয়ারম্যান জেসমিন ইসলাম ও জামাল উদ্দিন। কারাগারে মারা গেছেন সোনালী ব্যাংক হোটেল রূপসী বাংলা শাখার ব্যবস্থাপক এ কে এম আজিজুর রহমান।

মামলার অপর ১৭ আসামি পলাতক রয়েছেন। এঁরা হলেন: হলমার্ক গ্রুপের সহযোগী প্রতিষ্ঠান অ্যাপারেল এন্টারপ্রাইজের মালিক মো. শহিদুল ইসলাম, স্টার স্পিনিং মিলসের মালিক মো. আব্দুল বাছির, টি অ্যান্ড ব্রাদার্সের পরিচালক তসলিম হাসান, ম্যাক্স স্পিনিং মিলসের মালিক মীর জাকারিয়া, সেঞ্চুরি ইন্টারন্যাশনালের মালিক মো. জিয়াউর রহমান, আনোয়ারা স্পিনিং মিলসের মালিক মো. জাহাঙ্গীর আলম, প্যারাগন গ্রুপের এমডি সাইফুল ইসলাম রাজা, নকশী নিটের এমডি মো. আবদুল মালেক ও সাভারের হেমায়েতপুরের তেঁতুলঝোড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. জামাল উদ্দিন সরকার, সোনালী ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ের জিএম ননীগোপাল নাথ (বর্তমানে ওএসডি), প্রধান কার্যালয়ের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক হুমায়ুন কবির, ডিএমডি মাইনুল হক (বর্তমানে ওএসডি), দুই এজিএম মো. কামরুল হোসেন খান (সাময়িক বরখাস্ত) ও এজাজ আহম্মেদ, সহকারী উপমহাব্যবস্থাপক মো. সাইফুল হাসান, নির্বাহী কর্মকর্তা আবদুল মতিন ও সোনালী ব্যাংক ধানমন্ডি শাখার বর্তমান জ্যেষ্ঠ নির্বাহী কর্মকর্তা মেহেরুন্নেসা মেরি।

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

nine + 5 =