এবার চীনা ও নরওয়েজীয় দুই বন্দীকে হত্যা করলো জঙ্গী আইএস

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail
     অসলোতে সংবাদ সম্মেলনে নরওয়ের প্রধানমন্ত্রী (বায়ে) ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী। ১৮ নভেম্বর, ২০১৫। রয়টার্স

অসলোতে সংবাদ সম্মেলনে নরওয়ের প্রধানমন্ত্রী (বায়ে) ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী। ১৮ নভেম্বর, ২০১৫। রয়টার্স

চীনা ও নরওয়েজীয় দুই বন্দীকে হত্যা করার ঘোষণা দিলো জঙ্গী ইসলামিক স্টেট (আইএস) ।বুধবার নিজেদের অনলাইন ইংরেজী ভাষার সাময়িকী ‘দাবিক’ এর সর্বশেষ সংখ্যায় দুই ব্যক্তির ছবি প্রকাশ করে তাদের নীচে ‘হত্যা করা হয়েছে’ লেখা ছাপিয়েছে জঙ্গিগোষ্ঠীটি। কিন্তু কখন, কোথায় ও কেন এদের হত্যা করা হয়েছে সে বিষয়ে বিস্তারিত কিছু জানায়নি।

অসলোতে এক সংবাদ সম্মেলনে নরওয়ের প্রধানমন্ত্রী আর্না সুরবার্গ জানান, নরওয়েজীয় নাগরিক ‘উলে ইউয়ান গ্রিমসগার্দ-স্তারোয়া’ সম্ভবত খুন হয়েছেন। আর্না সুরবার্গ সেপ্টেম্বরে জানিয়েছিলেন, এক নরওয়েজীয় জানুয়ারি থেকে সিরিয়ায় জিম্মি হয়ে আছেন, তিনি আইএসের হাতে বন্দি হয়ে আছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।আইএসের ঘোষণার পর ও  নরওয়েজীয় সরকার ঘটনাটি যাচাই করার চেষ্টা করছে । একথা জানান সুরবাগ।  হত্যাকাণ্ডের নিন্দা জানান তারা।

সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে থাকা পররাষ্ট্রমন্ত্রী বোয়ের্গে বৃন্দে বলেন, আইএস’র প্রকাশিত ছবিটির বিষয়ে নরওয়ে সরকারের কোনো সন্দেহ নেই।  বেইজিংয়ে অপর এক সংবাদ সম্মেলনে চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র হং লেই এ ঘটনার প্রতিক্রিয়ায় ‘গভীর মর্মবেদনা’ প্রকাশ করে জানান, চীনা নাগরিককে হত্যার বিষয়টি যাচাই করে দেখছেন তারা।

সেপ্টেম্বরে চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ও তাদের এক নাগরিক আইসের হাতে আটক হয়ে থাকতে পারে বলে জানায়। জিম্মি ফ্যাং জিংহুই এর মুক্তির জন্য চীন সরকার চেষ্টা করছে বলেও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে দেওয়া বিবৃতিতে জানিয়েছিলেন লেই। জিম্মি চীনা নাগরিক ৫০ বছর বয়সী ফ্যাং জিংহুই বেইজিংয়ের একজন ফ্রিল্যান্স পরামর্শক বলে জানিয়েছিল আইএস।

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

five × 4 =