কারচুপির অভিযোগ এনে নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন বিএনপিসমর্থিত মেয়র প্রার্থী মনজুর আলম

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

Manju imagesচট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ৮০ শতাংশ কেন্দ্র দখল করে ক্ষমতাসীনদের ব্যাপক কারচুপির অভিযোগ এনে নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন বিএনপিসমর্থিত মেয়র প্রার্থী মনজুর আলম।এর আগে সকাল ৯টা ৪০ মিনিটে নগরীর উত্তর কাট্টলী হাজী দাউদ আহমদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভোট দেন মনজুর আলম। ভোটকেন্দ্র থেকে বেরিয়ে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, “বিভিন্ন জায়গায় কেন্দ্র দখল হয়েছে। অনেক জায়গায় এজেন্টদের ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে না। নানাভাবে বাধাপ্রাপ্ত হচ্ছে আমার এজেন্টরা।” রিটার্নিং কর্মকর্তাকে এসব বিষয়ে অভিযোগ করার কথাও বলেন তিনি।

রাজনীতি থেকেও নিজেকে ‘গুটিয়ে’ নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন তিনি।মঙ্গলবার সকাল ৮টায় চট্টগ্রামের ৭১৯টি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ শুরুর তিন ঘণ্টার মাথায় বেলা সোয়া ১১টায় দেওয়ানহাটে নিজের নির্বাচনী কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এই ঘোষণা দেন চট্টগ্রাম সামাজিক উন্নয়ন আন্দোলনের প্রার্থী মনজুর।গত পাঁচ বছর চট্টগ্রামের মেয়রের দায়িত্ব পালনের পর এবারও বিএনপির সমর্থনে প্রার্থী হয়েছিলেন দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার এই উপদেষ্টা। তিনি বলেন, “এটাই আমার শেষ নির্বাচন, রাজনীতি থেকেও নিজেকে গুটিয়ে নিলাম।”

তার প্রধান নির্বাচনী এজেন্ট বিএনপি নেতা আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী কারচুপির অভিযোগ তুলে ধরে বলেন, “৮০ শতাংশ ভোটকেন্দ্র দখল হয়ে গেছে। আমাদের এজেন্টদের বের করে দেওয়া হচ্ছে। আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী নিশ্চুপ রয়েছে।” মনজুর বলেন, “যেহেতু নির্বাচন হয়েই যাচ্ছে, তাই আমি নির্বাচন বর্জন করলাম এবং নিজেকে প্রত্যাহার করে নিলাম।”

এ নির্বাচনে মেয়র পদে ১২ জন প্রতিদ্বন্দ্বীর মধ্যে মনজুর আলমের প্রতীক কমলালেবু। আর আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী ও আ জ ম নাছির উদ্দিন হাতি প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করছেন।

মনজুরের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সমন্বয়ক আবদুল্লা আল নোমান ও উন্নয়ন আন্দোলনের সদস্য সচিব নুরুল ইসলাম সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

12 + 15 =