কুমিল্লায় সিইটিপি স্থাপন: সোমবার উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

Comilla CETPসাড়ে ৩৮ কোটি টাকা ব্যয়ে কুমিল্লা ইপিজেডে দিনে ১৫ হাজার ঘন মিটার তরল বর্জ্য পরিশোধণ ক্ষমতার সিইটিপি স্থাপন করা হয়েছে। সোমবার প্রকল্পের উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।সীমিত সময় ও কম খরচে বেশি তরল বর্জ্য পরিশোধণে কুমিল্লা ইপিজেডেও চালু হচ্ছে সিইটিপি। এ প্রক্রিয়ার আওতায় কুমিল্লা ইপিজেডের ৩৭টি কারখানার তরল বর্জ্য কেন্দ্রীয়ভাবে একটি জায়গায় পরিশোধন করা হবে। এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করেছে সিগমা ইঞ্জিনিয়ারিং লিমিটেড। কুমিল্লা ইপিজেডের প্রতিটি কারখানাকে বর্জ্য পরিশোধনের জন্য নির্ধারিত মূল্য পরিশোধ করতে হবে।

পরিবেশ দূষণ কমাতে কারখানার রাসায়নিক ও জৈবিক তরল বর্জ্য পরিশোধনে ব্যবহার করা হয় ইটিপি বা বর্জ্য পরিশোধনাগার। যে কোনো শিল্প প্রতিষ্ঠানের একার পক্ষে এ প্রক্রিয়াটি বাস্তবায়ন করা ব্যয়বহুল হওয়ায় ক্রমান্বয়ে দেশের বিভিন্ন ইপিজেডে তৈরি করা হয়েছে সিইটিপি বা কেন্দ্রীয় বর্জ্য পরিশোধনাগার।

সিইটিপি চালুর পর কুমিল্লা ইপিজেডের কারখানাগুলো আলাদা ভাবে আর তরল বর্জ্য পরিশোধনের প্রয়োজন হবে না।

এ প্রকল্পের মাধ্যমে প্রতিদিন ১৫ হাজার কিউবিক মিটার পানি পরিশোধণ করা হবে। কারখানার সকল প্রকার জৈব ও তরল বর্জ্য এই প্রক্রিয়ার মাধ্যমে শোধণ করা হবে। যাতে পরিবেশ দূষণ কমে যাবে বলে জানিয়েছেন বেপজা কর্তৃপক্ষ ।

বেপজার মহাব্যবস্থাপক আব্দুস সোবাহান বলেন, এখানে ৩৭টি কারখানা রয়েছে। যারা নিয়মিত আমদানী রপ্তানী ও উৎপাদন করছে। এই প্রকল্পের কারণে কারখানা গুলোর পরিশোধন ব্যয় অর্ধেকে নেমে আশায় তিনি আশা করছেন সকল কারখানায় এ ব্যবস্থার আওতায় আসবে।কুমিল্লা ইপিজেডের সিইটিপিতে রাসায়নিক এবং জৈবিক উভয় পদ্ধতিতে বর্জ্য পরিশোধন করা হবে।

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

2 × three =