খরায় ধুঁকছে অস্ট্রেলিয়ার সব থেকে জনবহুল এলাকা নিউ সাউথ ওয়েল্‌স

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

জুলাই মাসে রেকর্ড কম পরিমাণ বৃষ্টি হয়েছে দেশের কৃষিজাত পণ্যের এক চতুর্থাংশ সরবরাহকারী এই এলাকায়। কয়েকটি অঞ্চলে ১০ মিলিমিটারেরও কম বৃষ্টি হয়। তারপরই এমাসের ৮ তারিখ নিউ সাউথ ওয়েল্‌সে খরা ঘোষণা করেছে অস্ট্রেলিয়া সরকার। নদী, খাল সহ জলাশয়গুলির জলস্তর বিশাল হারে নেমে গিয়েছে। চাষের কাজে জল ব্যবহার করতে পারছেন না কৃষকরা। পালিত পশুপাখিদের জন্যও পানীয় জলের ব্যবস্থা নেই।

মাথায় হাত পড়েছে কৃষকদের। বনের পশুপাখিদের আরও দুরবস্থা। পানীয় জল এবং খাবারের খোঁজে জঙ্গল পেরিয়ে ব্রোকেন হিল শহরে ঢুকে পড়েছে কয়েকশো এমু পাখি। সপ্তাহান্তে ব্রোকেন হিলের রাস্তায় সন্ত্রস্ত এমুর ঝাঁককে ছোটাছুটি করতে এবং খাবারের খোঁজে বাড়ির বাগানে ঢুকে গাছপালা নষ্ট করতে দেখা যায়। রবিবারই গাড়ির ধাক্কায় পাঁচটি এমুর মৃত্যুর খবর মেলায় উদ্বিগ্ন অস্ট্রেলিয়ার পশুপ্রেমী সংগঠন রেসকিউ অ্যান্ড রিহ্যাবিলিটেশন অফ অস্ট্রেলিয়ান নেটিভ অ্যানিম্যাল্‌স সদস্য এমা শিংলেটন বললেন গাড়ির থেকেও পথকুকুরদের আক্রমণকেই বেশি ভয় পাচ্ছেন তাঁরা।

গত এক সপ্তাহ ধরে ব্রোকেন হিলে ঘুরে বেড়াচ্ছে এমুগুলি।
সঙ্কটের সময় কৃষকদের পাশে থাকার আশ্বাস দিয়ে টার্নবুল তাঁদের জন্য ক্ষতিপূরণ ঘোষণা করেছেন। কৃষকদের সাহায্যে বরাদ্দ ত্রাণ তহবিলে অতিরিক্ত ১.‌৩ বিলিয়ন মার্কিন ডলার দেওয়ার কথা ঘোষণা করে প্রধানমন্ত্রী সবাইকে এই অসময়ে নিউ সাউথ ওয়েল্‌সকে সাহায্যের আবেদন করেছেন। রবিবারই তিনি খরাবিধ্বস্ত এলাকা কপ্টারে পরিদর্শন করেন। স্টেটের ২০০ জন কৃষকের জন্য ২৩টি ট্রাকে ২৩০০ আঁটি খড় পাঠানো হয়েছে, যা দিয়ে তাঁরা তাঁদের পোষ্যের খাবারের ব্যবস্থা করতে পারেন।

ইতিমধ্যেই স্টেটে কয়েক ডজন দাবানল লেগে গিয়েছে। বৃষ্টি না হলে আগামী দিনগুলিতে খরার আরও কঠিন সমস্যা সহ্য করতে হবে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। শুধু নিউ সাউথ ওয়েল্‌সই নয়, প্রখর তাপে পুড়ছে পার্শ্ববর্তী স্টেট কুইন্সল্যান্ড এবং ভিক্টোরিয়াও। কুইন্সল্যান্ডে একাংশেও খরা ঘোষণা করেছে সেই এলাকার প্রশাসন।

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

thirteen − 4 =