উপমহাদেশের খ্যাতিমান সংগীতজ্ঞ সুধীন দাশ আর নেই

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

নজরুলসংগীতের প্রখ্যাত গবেষক , সংরক্ষক, শিল্পী, প্রশিক্ষক এবং স্বরলিপিকার সুধীন দাশ আর নেই।
মঙ্গলবার রাত ৮টা ২০ মিনিটে রাজধানীর অ্যাপোলো হাসপাতালে উপমহাদেশের খ্যাতিমান এ সংগীতজ্ঞ শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তার বয়স হয়েছিল ৮৭ বছর। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী বিশিষ্ট সংগীত শিল্পী নীলিমা দাশ,কন্যা সুপর্ণা, জামাতা মো. হাসান মাহমুদ স্বপন সহ অনেক স্বজন এবং তাঁর শিষ্যদের সহ অসংখ্য শিক্ষার্থী রেখে গেছেন।সুধীন দাশকে ১৯৮৮ সালে একুশে পদক দেওয়া হয় ।
মহান এ শিল্পীর মরদেহ অ্যাপোলো হাসপাতালের শবহিমাগারে রাখা হয়েছে। আগামী বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় সুধীন দাশের মরদেহ সবার শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে রাখা হবে। এরপর তাঁর শেষকৃত্য সম্পন্ন হবে। এছাড়া তেজগাঁওয়ে চ্যানেল আই কার্যালয়ে সুধীন দাশ স্মরণে একটি শোক বই খোলা হয়েছে।

সুধীন দাশ ছিলেন উপমহাদেশের একজন প্রখ্যাত সংগীতজ্ঞ এবং সংগীত গবেষক। বাংলাদেশে সংগীতের ক্ষেত্রে যাঁরা বিশেষ অবদান রেখেছেন, তিনি তাঁদের একজন। একসময়ের বেতারের শীর্ষ রবীন্দ্রসংগীতশিল্পী সুধীন দাশ সংগীতের প্রতিটি শাখায় সদর্পে বিচরণ করে নিজেকে সংগীত জগতের একটি প্রতিষ্ঠানে পরিণত করেন। বাংলা গানকে গতিশীল করার ক্ষেত্রে তাঁর অবদান অসীম।
বিশিষ্ট রবীন্দ্রসংগীতশিল্পী বুলবুল ইসলাম তাঁর ফেসবুকের টাইমলাইনে লিখেছেন, সুধীন দাশ অার নেই, খবর টা পে‌য়েই ময়না‌কে সে‌ঙ্গে নি‌য়ে ছু‌টে গেলাম হাসপাতা‌লে । অ‌নেক কিছুই ম‌নে পড়‌তে লাগল । অা‌মি প্রথম তাঁর গান শু‌নে‌ছিলাম রবীন্দ্রসঙ্গীত । সে‌ যে কি এক অসাধারণ ভা‌লোলাগা, এক অসাধারণ মুগ্ধকর স্মৃ‌তি অা‌মি ৩০ বছর পরও যেন শন‌তে পাই ‘ একদা তু‌মি প্রি‌য়ে’। উ‌নি মূলত নজরুল সঙ্গী‌তের মানুষ । কিন্তুু রবীন্দ্রনা‌থের গান ছিল তাঁর প্রা‌ণের গান ।
জা‌নিনা হয়ত রবীন্দ্রনা‌থের গানের স্বরলিপির সুশৃঙ্খল গ্রন্থভু‌ক্তি তাঁ‌কে অনুপ্র‌া‌ণিত ক‌রে‌ছে কিনা, নজরু‌লের গান‌কে মূলসুর থে‌কে স্বর‌লিপি ক‌রে গ্রন্থ ভুক্ত করা, যা‌তে নজরু‌লের গা‌ন কে সু‌রের ‌বিকৃ‌তি থে‌কে রক্ষা করা যায় ।বাংলাদে‌শে ওঁর এই স্বপ্ন অাজ সফলতার মুখ দেখ‌ছে । বিনম্র শ্রদ্ধা প্রিয় সুধীন দা…”

নজরুলসংগীতের আদি গ্রামোফোন রেকর্ডের বাণী ও সুর অনুসারে স্বরলিপি গ্রন্থ লিখে সধীন দাশ সংরক্ষণ করেছেন নজরুলের মূলধারা। পৌছে দিয়েছেন পরবর্তী প্রজন্মের কাছে । সুধীন দাশ নজরুল ইনস্টিটিউট থেকে ১৬টি ও নজরুল একাডেমি থেকে ৫টিসহ মোট ২১টি খন্ডের ‘নজরুলের গানের স্বরলিপি’ গ্রন্থ বের করেন। লালনগীতির ক্ষেত্রেও তাঁর অবদান সর্বজন স্বীকৃত। তিনিই প্রথম লালনগীতির স্বরলিপি গ্রন্থ প্রকাশ করেন।

সোমবার সুধীন দাশের জ্বর ছিল বলে জানান তাঁর  জামাতা মো. হাসান মাহমুদ স্বপন ।
মঙ্গলবার সকালে মিরপুর বাসায় হঠাৎ​ বমি করেন তিনি। এরপর তাঁকে কল্যাণপুরের একটি ক্লিনিকে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে সেখান থেকে অ্যাপোলো হাসপাতালে নেওয়ার পর তাকে দ্রুত আইসিইউতে ভর্তি করা হয়।চিকিৎ​সকরা জানান, বার্ধক্যজনিত কিছু সমস্যা ছিল। হাসপাতালে আনার পর তাঁর কিডনি, লিভার, হার্টসহ শরীরের বিভিন্ন প্রত্যঙ্গ অকার্যকর হয়ে যায়। পরে লাইফ সাপোর্ট দেয়া হয়।

এরপর তাঁকে চ্যানেল আই নজরুল মেলায় আজীবন সম্মাননা দেওয়া হয়। পেয়েছেন মেরিল–প্রথম আলো আজীবন সম্মাননা, নজরুল একাডেমী পদকসহ অসংখ্য সম্মাননা।

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

3 × 3 =