চোরাগোপ্তা গ্রেনেড হামলা চালাচ্ছে জামায়াত-কর্ণেল জিয়াউল আহসান

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

GranadeCol Ziaসাম্প্রতিক সময়ে চোরাগোপ্তা গ্রেনেড হামলায় নেমেছে জামায়াত । একের পর এক গ্রেনেড হামলার তদন্তে নেমে এমনই তথ্য উঠে এসেছে গোয়েন্দা অনুসন্ধানে। হোসনি দালানে হামলায় ব্যবহৃত গ্রেনেডের মতো একই ধরনের গ্রেনেড এ বছর চট্টগ্রামে জঙ্গিদের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়েছিল বলে জানিয়েছে র‍্যাব। র‍্যাবের অতিরিক্ত মহাপরিচালক কর্নেল জিয়াউল আহসান সূর্যবার্তা টোয়েন্টিফোর ডটকমকে  বলেন, এ বছর ফেব্রুয়ারি ও এপ্রিলে চট্টগ্রামে জঙ্গী সংগঠন ‘হামজা ব্রিগেড’কে এ ধরণের গ্রেনেড, বিপুল অস্ত্র ও গোলাবারুদসহ  গ্রেপ্তার করে র‍্যাব। ২১ এপ্রিল আশুলিয়ার কাঠগড়ায় কমার্স ব্যাংক ডাকাতির ঘটনাতেও জঙ্গিরা একই ধরনের গ্রেনেড ব্যবহার করে বলে জানান কর্ণেল জিয়াউল আহসান।

এদিকে ঢাকা মহানগর পুলিশের কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, গত বৃহস্পতিবার রাতে রাজধানীর গাবতলীতে একটি তল্লাশি চৌকিতে দারুস সালাম থানার এএসআই ইব্রাহিম মোল্লা হত্যার সঙ্গে জড়িত একজনের তথ্যের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে কামরাঙ্গীরচরের একটি বাসা থেকে সাতটি গ্রেনেড উদ্ধার করে পুলিশ। ঢাকা মহানগর পুলিশের কমিশনার আরো বলেন, কামরাঙ্গীরচরের উদ্ধার হওয়া গ্রেনেডগুলোর মতো একই গ্রেনেড হোসনি দালানে হামলায় ব্যবহৃত হয়েছে। তিনি বলেন, এ থেকে ধারণা করা হয় এএসআই হত্যার সঙ্গে যারা জড়িত তারাই সেই হামলা চালিয়েছে।

র‍্যাব সূত্রে প্রকাশ,ফেব্রুয়ারি ও এপ্রিল মাসে কয়েক দফা অভিযান চালিয়ে চট্টগ্রাম থেকে হামজা ব্রিগেডের ২৪ জন সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাদের কাছ থেকে পাঁচটি একে-২২ রাইফেলসহ প্রচুর অস্ত্র ও বিস্ফোরক উদ্ধার করা হয়েছিল। এর মধ্যে এ ধরনের গ্রেনেড ছিল। গত ২১ এপ্রিল আশুলিয়ার কাঠগড়া বাজারের কমার্স ব্যাংকের ডাকাতির ঘটনায় ২ ডাকাতসহ ৯জন নিহত ও ১৬ জন আহত হয়।ডাকাতেরা গ্রেনেড হামলা চালিয়ে, গুলি করে, ছুরি মেরে মানুষজনকে হতাহত করে। পরে ঢাকা জেলা পুলিশ তদন্ত করে জানতে পারে সেই ঘটনার সঙ্গে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন জেএমবি জড়িত। পুলিশ টঙ্গীতে জেএমবির একটি আস্তানা থেকে অস্ত্র ও বিস্ফোরক উদ্ধার করে। সেই ঘটনায় জড়িত জেএমবি জঙ্গিদের কয়েকজনকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে।

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

three × two =