জঙ্গিদের নতুন ‘হিট লিস্ট’: বিশ্বগণমাধ্যমে সংবাদ:নিরাপত্তা চেয়ে ব্রিটিশ সরকারের কাছে আবেদন

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail
লন্ডনের পোর্টসমাউথ মনজিদের নিয়মিত মুসল্লিদের থেকে আইএস এর জঙ্গী দলে যোগ দিচ্ছে তরুণেরা
লন্ডনের পোর্টসমাউথ মনজিদের নিয়মিত মুসল্লিদের থেকে আইএস এর জঙ্গী দলে যোগ দিচ্ছে তরুণেরা

ব্লগার, লেখক এবং অসাম্প্রদায়িক আন্দোলন সংশ্লিষ্টদের হত্যার হুমকি দিয়ে ইন্টারনেটে নতুন একটি ‘হিট লিস্ট’ প্রকাশ করেছে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন আনসারউল্লাহ বাংলা টিম (এবিটি)। এই তালিকায় বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত ৯ জন বৃটিশ, ৭ জন জার্মান, ২ জন মার্কিন, ১ জন কানাডীয় এবং ১ জন সুইডিশ নাগরিকের নাম রয়েছে। দ্বৈত নাগরিকত্ব পাওয়া কয়েকজন আছেন এই তালিকায়।

উল্লেখ্য, গত কিছুদিন থেকে লন্ডনের বাঙ্গালীদের মধ্যে উদ্বেগ এবং আতংক ছড়িয়েছে সেখানকার কয়েকটি মসজিদ। এর মধ্যে পোর্টসমাউথ মসজিদ অন্যতম। এই মসজিদে  যাতায়াতকারী তরুণদের জঙ্গীবাদে সম্পৃক্ত করে সিরিয়ায় পাঠানো হয়েছে, যাদের ৫ জন সম্প্রতি নিহত হয়েছে। একজন লন্ডনে ফিরে যাওয়ার পর তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

এবিটি’র এই ‘হিট লিস্ট’ এর খবর বেশ গুরুত্ব পেয়েছে প্রভাবশালী গণমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান, ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস টাইমসসহ বিশ্ব গণমাধ্যমে। নতুন এই হিট লিস্টের মাধ্যমে দক্ষিণ এশীয় দেশটিতে মাথাচাড়া দেয়া ধর্মীয় উগ্রপন্থা বৈশ্বিক চরিত্র পাচ্ছে বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করেছে গার্ডিয়ান। তবে উগ্রবাদীদের হুঁমকিকে পরোয়া না করে মুক্তচিন্তার চর্চা ও লেখালেখি চালিয়ে যাওয়ার অঙ্গীকারের কথা গার্ডিয়ানের সামনে তুলে ধরেছেন ব্লগার, লেখকরা।

জানা গেছে ,নতুন এই তালিকায় জঙ্গী হামলায় নিহত লেখক ও ব্লগার অভিজিৎ রায়ের স্ত্রী লেখক রাফিদা আহমেদ বন্যার নামও রয়েছে। হিটলিস্টের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর কাছে ব্লগার-লেখকদের বাংলাদেশী নাগরিকত্ব বাতিলের দাবি তুলেছে গোষ্ঠীটি। এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে ব্রিটিশ গণমাধ্যম গার্ডিয়ান।
এতোদিন সংগঠনটি শুধু বাংলাদেশী ব্লগার,লেখক সংস্কৃতি কর্মী ও বিশিষ্ট ব্যক্তিদের হত্যার হুমকি দিয়েছে।নতুন তালিকা উদ্বিগ্ন করেছে প্রশাসনকে।

হিট লিস্টের সঙ্গে প্রকাশিত বিবৃতিতে মুক্তচিন্তার ব্লগারদের বাংলাদেশী নাগরিকত্ব বাতিল করার দাবি জানিয়েছে গোষ্ঠীটি। বিবৃতিতে তারা দাবি করে ,‘ ইসলামের শত্রু এসব অবিশ্বাসী-নাস্তিক, ভারতের দালালদের বাংলাদেশী নাগরিকত্ব বাতিল করতে হবে। তা না করা হলে আল্লাহর দুনিয়ায় যেখানে তাদের পাওয়া যাবে, হত্যা করা হবে’।হিট লিস্ট ও সংযুক্ত বিবৃতির উৎস সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যায়নি। এটা বাংলাদেশের আনসারউল্লাহ বাংলা টিমের কিনা তা নিয়েও সন্দেহ রয়েছে। যুক্তরাজ্য ও পশ্চিমা দেশগুলোতে অবস্থানকারী জঙ্গীগোষ্ঠী  এই তালিকা প্রকাশ করে থাকতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

হুঁমকিপ্রাপ্ত যুক্তরাজ্য  প্রবাসী ব্লগাররা ইতোমধ্যে বিষয়টি লন্ডন ও ব্রিটেনের পুলিশকে জানিয়েছেন। আনসারউল্লাহ’র বিদেশের মাটিতে হামলা করার সামর্থ্য আছে কি না তা খতিয়ে দেখার পাশাপাশি তাদের আরো সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছে দেশটির প্রশাসন।

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

7 − two =