জমজমাট থ্রিলার ‘মহানায়িকা’ মুক্তির পথে

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

ফেব্রুয়ারিতে কলকাতায় মুক্তি পাচ্ছে ‘মহানায়িকা’। নাম শুনে  আঁচ করা যায়, ছবিটা বানানো হয়েছে বাংলা ছায়াছবির কিংবদিন্তি মহানায়িকা সুচিত্রা সেনের জীবনের সঙ্গে অনেকটা সঙ্গতি রেখেই।

ছবির পরিচালক সৌগত চক্রবর্তী এ-ব্যাপারে বলেন, “দৃশ্যত আমাদের এ ছবির গল্পের সঙ্গে বাস্তবের মহানায়িকার কোনো মিল নেই। তবে ছবির নাম যখন ‘মহানায়িকা’, তখন কিছু মিল তো থাকতেই পারে।বাস্তবের মহানায়িকা যেমন বাংলা ছবিতে আধিপত্য বিস্তার করেছিলেন, আমাদের ছবির মহানায়িকাও তাঁর সময়ে ঠিক সেরকমই আধিপত্য বিস্তার করে আছেন। এটা যদি এক নম্বর মিল হয়, তবে দ্বিতীয় মিল হল, বাস্তবের মহানায়িকা ১৯৬৯-এ ‘কমললতা’ ছবিতে অভিনয় করেছিলেন। আমাদের ছবির মহানায়িকাকেও দর্শক ‘কমললতা’র অভিনেত্রী হিসেবে দেখতে পাবেন।” সৈকতের পরিচালনায় এটা প্রথম ছবি।

এর আগে সৈকত দীর্ঘদিন কলকাতার ঐতিহ্যবাহী মিনার্ভা থিয়েটার মঞ্চে অভিনয় করেছেন ‘রাজা লিয়ার’ নাটকে আরেক কিংবদন্তী অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে। সৌমিত্রও ‘মহানায়িকা’ ছবিতে অভিনয় করছেন একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকায়।

সৌমিত্র বলেন, “এ ছবিতে একজন প্রযোজকের ভূমিকায় অভিনয় করেছি আমি, যে নায়িকার ওপর কিছু শর্ত আরোপ করবে। বলতেই হবে, গল্পে বেশ নতুনত্ব আছে।

‘মহানায়িকা’ নাম হলেও আদতে কিন্তু এই ছবি একটা থ্রিলার।”

ছবিটির কেন্দ্রীয় মহানায়িকা চরিত্রটি রূপায়িত করছেন নামী অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত। তিনিও স্বীকার করেন, এটা “একটা জমজমাট থ্রিলারও বটে। ছবিতে অভিনেত্রী ঘটনাচক্রে নানাভাবে নিজেকে আবিষ্কার করে। কিছু কিছু পরিস্থিতিতে বেশ নড়বড়ে হয়ে যায় তার আত্মবিশ্বাস। সেই সময়ে তার দেখা হয় একজন মিস্টিরিয়াস মানুষের সঙ্গে। যে অনেকটা বিবেকের মতো কাজ করে আমার অভিনীত চরিত্র শকুন্তলা সেনের জীবনে।“

মিস্টিরিয়াস মানুষটির চরিত্রে অভিনয় করেছেন ইন্দ্রনীল সেনগুপ্ত।

ছবিতে সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের ছেলের ভূমিকায় অভিনয় করেছেন সাহেব চট্টোপাধ্যায়। অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকায় অভিনয় করেছেন ফাল্গুনি চট্টোপাধ্যায়, শুভাশিস মুখোপাধ্যায়, সুদীপা বসু।

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

one × one =