জাঠ বিদ্রোহে অগ্নিগর্ভ হরিয়ানা: ৮ জেলায় সেনা মোতায়েন

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

উত্তাল জাঠ বিক্ষোভে রাজ্য প্রশাসনের নিয়ন্ত্রণের প্রায় বাইরে চলে গেছে ভারতের হরিয়ানা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে রাজ্যের ৮টি জেলায় সেনা মোতায়েন করা হয়েছে। সবথেকে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে রোহতক। বিক্ষোভের নামে সেখানে লুটপাট চালাচ্ছে উচ্ছৃঙ্খল জনতা।

সরকারি চাকরি এবং শিক্ষাক্ষেত্রে সংরক্ষণের দাবিতে এক সপ্তাহ ধরে হরিয়ানায় জাঠ সম্প্রদায়ের বিক্ষোভ চলছে। ধীরে ধীরে গোটা রাজ্যে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ছে। বিক্ষোভের জেরে শুক্রবার ৩ জনের মৃত্যুও হয়েছে।

রোহতক ছাড়িয়ে একের পর এক জেলায় দাবানলের মতো ছড়িয়ে পড়তে থাকা বিক্ষোভ রুখতে ভারতীয় বিমান বাহিনীর হেলিকপ্টারে করে সেনা জওয়ানের প্রায় ৩০টি দল  রোহতকে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

কিন্তু পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের এতই বাইরে চলে গেছে যে, সড়কপথে রোহতকে ঢুকতেই পারেননি সেনা জওয়ানরা। শেষ্পর্যন্ত তাঁরা বাধ্য হয়েছেন রোহতক পুলিশ লাইনের হেলিপ্যাডে অবতরণ করতে।

সেনাবাহিনীকে ব্যবহার করেই বিভিন্ন এলাকা বিক্ষোভকারীদের দখল থেকে মুক্ত করা হবে বলে প্রশাসন জানিয়েছে।

উত্তাল হয়ে উঠেছে হরিয়ানার আরেক শহর ঝিন্দও। শনিবার সকালে বিক্ষোভকারীরা আগুন লাগিয়ে দেয় ঝিন্দ রেলস্টেশনে, যার ফলে এ শহরেও কারফিউ জারি করতে হয়।

অধিকাংশ জাতীয় সড়ক এবং রাজ্য সড়কে অবরোধ চলতে থাকায় পরিবহন ব্যবস্থা বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। বিভিন্ন এলাকায় বিক্ষোভকারীরা রাস্তা কেটে দেয়ায় বন্ধ হয়েছে গেছে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের সরবরাহ। রাজ্যে অবরোধের জেরে প্রায় ৫৫০টি  ট্রেন বাতিল নয়তো রুট পরিবর্তন করতে হয়েছে।

শুক্রবার রাতে বিক্ষোভকারী জনতা রোহতকের একের পর এক শপিং মল, দোকান এবং বাড়ি ঘরে লুঠপাট চালিয়ে আগুন ধরিয়ে দেয়। রাজ্যের অন্যতম মন্ত্রী ক্যাপ্টেন অভিমন্যুর বাড়িতেও আগুন দেয় তারা।

আজ শনিবার সকাল সাড়ে ৯টার পরে রোহতকের বাসিন্দাদের বাড়ির বাইরে বেরোতে নিষেধ করেছে প্রশাসন। রোহতক-সহ বিভিন্ন এলাকায় সেনাবাহিনীর জওয়ানরা টহল দিচ্ছেন।

বিক্ষোভের জেরে দিল্লির থেকে মাত্র ৫০ কিলোমিটার দূরে সোনিপত জেলায় ১ নং জাতীয় সড়ক অবরুদ্ধ হয়ে রয়েছে। সব মিলিয়ে প্রায় ৫৫০টি ট্রেন বাতিল করা হয়েছে। কিছু ক্ষেত্রে রুট বদল করায় বিভিন্ন স্টেশনে যাত্রীরা আটকে পড়েছেন।

যে এলাকাগুলিতে বিক্ষোভ চলছে, সেখানে ইন্টারনেট এবং মোবাইল এসএমএস পরিষেবা বন্ধ রেখেছে প্রশাসন।

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

fourteen − eleven =