‘নদী ভাঙনের স্থায়ী সমাধানের কথা ভাবছে সরকার’-পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক বলেছেন, জলবায়ু পরিবর্তনের বৈশ্বিক ঝুঁকি বিবেচনায় বিশ্বে বাংলাদেশের অবস্থান পঞ্চম। বিষয়টিকে কার্যকর ব্যবস্থাপনায় না আনলে পরিস্থিতির আরও অবনতি হবে। তিনি বলেছেন, নদী ভাঙনের তাৎক্ষণিক সমাধান নয়, বরং স্থায়ী সমাধানের কথা ভাবছে সরকার।শনিবার দুপুরে খুলনার একটি অভিজাত হোটেলে এক কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক এসব কথা বলেন।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপকূলীয় বাঁধ উন্নয়ন প্রকল্প, ফেজ-১-এর ‘বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকার দীর্ঘ মেয়াদি পর্যবেক্ষণ, গবেষণা এবং বিশ্লেষণ’ শীর্ষক সমীক্ষার ওপর আঞ্চলিক মতবিনিময় কর্মশালার আয়োজন করা হয়।

প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক বলেন, পৃথিবীর বৃহত্তম বদ্বীপ বাংলাদেশের উপকূলীয় অঞ্চলকে প্রাকৃতিক সম্পদে সম্পদশালী বিবেচনা করা হয়। ঘূর্ণিঝড়, জলোচ্ছ্বাস ও পরিবেশগত অবক্ষয় বিবেচনায় নিয়ে নতুন করে উপকূলীয় পোল্ডার ব্যবস্থাপনা বিষয়ে ভাবতে শুরু করেছে সরকার। তিনি বলেন, ক্ষুদ্র প্রকল্পের পরিবর্তে বৃহৎ প্রকল্পের মাধ্যমে নদী শাসন করে অবস্থার পরিবর্তন আনা সম্ভব। বন্যা ও নদী ভাঙন কবলিত এলাকা রক্ষায় সময় মতো পদক্ষেপ গ্রহণের ফলে সুনামগঞ্জকে এ মৌসুমে আগাম বন্যা হতে রক্ষা করা সম্ভব হয়েছে।

জাহিদ ফারুক আরও বলেন, স্থানীয় জনগণ ও জনপ্রতিনিধিদের ভাবনাকে উন্নয়নকাজের সময় গুরুত্ব দেওয়া প্রয়োজন। দেশের অন্য এলাকা হতে উপকূলীয় অঞ্চলের প্রকৃতি ভিন্ন হওয়ার উপকূলীয় এলাকার জন্য বিদ্যমান সমস্যার সমাধানও ভিন্ন হবে। সবাই মিলে কাজ করলে সমাধান সহজে অর্জিত হবে।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, দেশের উপকূলীয় এলাকার ১৩৯টি পোল্ডারকে পরিবর্তিত পরিস্থিতির সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ করে টেকসই ব্যবস্থাপনার আওতায় আনলে এ অঞ্চলে বসবাসকারী দেশের ২৬ শতাংশ বা তিন কোটি ৮০ লাখ মানুষ উপকৃত হবে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী এ কে এম এনামুল হক শামীম, খুলনা-৬ (কয়রা-পাইকগাছা) আসনের সংসদ সদস্য মো. আক্তারুজ্জামান বাবু, পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব কবির বিন আনোয়ার, খুলনার অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (উন্নয়ন) নিশ্চিন্ত কুমার পোদ্দার ও জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন উপকূলীয় বাঁধ উন্নয়ন প্রকল্প, ফেজ-১-এর প্রকল্প পরিচালক মো. হাবিবুর রহমান। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন পানি উন্নয়ন বোর্ডের মহাপরিচালক প্রকৌশলী মো. মাহফুজুর রহমান।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে স্থানীয় জনগণ, পেশাজীবী এবং বিশেষজ্ঞদের অংশগ্রহণে পোল্ডারসমূহের সমস্যা, উন্নয়ন পরিকল্পনা এবং নকশা বিষয়ে কারিগরি সভা অনুষ্ঠিত হয়।

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

two + fifteen =