পরিচয় গোপন করে ভারতে হিন্দু তরুণীকে বিয়ে করে ভাই সহ গণধর্ষণ

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

নিজস্ব প্রতিবেদন: ভারতীয় যুবক সফরাজ হুসেন তার ধর্মীয় পরিচয় গোপন করে এক হিন্দু তরুণীকে বিয়ে করে। বিয়ের পর সেই তরুণীকে জোর করে ধর্মান্তর  করে  তার ভাই সহ গণধর্ষণ করেছে তরুণীটিকে। ঘটনাটি ঘটেছে  ভারতের উত্তরপ্রদেশের রামপুর জেলায়। অভিযুক্ত সফরাজ হুসেন, তাঁর বাবা ইজহার হুসেন, মা শাকিলা ও ভাই জফর হুসেন-সহ  ৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছে  স্থানীয় পুলিস।

 রামপুরে নিজের বাড়ি ফিরে পুলিসের কাছে এফআইআর করে তরুণী। সফরাজ ও তার পরিবার  পলাতক। পুলিস জানিয়েছে, নির্যাতিতার বয়ান নথিবদ্ধ করা হয়েছে। তদন্ত চলছে।

ভারতের  উত্তরপ্রদেশের  বিলাসপুরের এসএইচও এসপি সিং জানিয়েছেন, বছর তিনেক আগে মোরাদাবাদে স্নাতক পড়ার সময়েই সফরাজ হুসেনের সঙ্গে আলাপ হয়েছিল ওই তরুণীর।তাঁর কলেজের বিপরীতে একটি অফিসে কাজ করতেন সফরাজ। নিজেকে ‘রাজ বিষ্ণোই’ বলে পরিচয় দেয় সফরাজ। সন্দেহ যাতে না হয় মেয়েটির সঙ্গে মন্দিরে গিয়ে পুজোও দিত সফরাজ।

পুলিশ জানায় ,বিয়ের আগে ২০১৫ সালের অগাস্টে দুজনের মধ্যে শারীরিক সম্পর্ক হয়। তরুণীটি সন্তানসম্ভবা হয়ে পড়ার পর হরিদ্বারের মন্দিরে জোর করে বিয়ে করে সফরাজ । এরপর রামপুরে স্ত্রীকে রেখে চলে যায়। পরে দুজনে একসঙ্গে থাকতে শুরু করলে সফরাজের আসল পরিচয় জানতে পারে ওই তরুণী। তা সত্ত্বেও তিনি সংসার করছিলেন। ২০১৭ সালে নিজের বাড়িতে স্ত্রীকে নিয়ে মুসলিম মতে নিকাহও করে সফরাজ । এরপর তরুণীকে ধর্ম পরিবর্তনের জন্য চাপ দিতে শুরু করে। চাপের কাছে মাথা নত করেনি তরুণী।  অকথ্য অত্যাচার শুরু করে সফরাজ। একদিন মৌলবি ডেকে জোর করে তাকে ধর্মান্তর করা হয় বলে জানায় তরুণী। সফরাজের ভাইও তাঁকে ধর্ষণ করতে থাকে। অত্যাচার ও লাগাতার ধর্ষণের পর কোনওক্রমে পালিয়ে যেতে সক্ষম হয় তরুণী।

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

fourteen + 19 =