প্রথম ‘দেবদাস’ চলচ্চিত্রের কপি হস্তান্তর:বিনিময়ে ১৫টি ঐতিহাসিক দুর্লভ চলচ্চিত্র পেয়েছে বাংলাদেশ

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

ভারতের জাতীয় ফিল্ম আর্কাইভের বহুকাক্সিত ১৯৩৫ সনে নির্মিত প্রথম ‘দেবদাস’ চলচ্চিত্রের কপিটি হস্তান্তরের বিনিময়ে পনেরোটি ঐতিহাসিক দুর্লভ চলচ্চিত্র পেয়েছে বাংলাদেশ।‘দু’দেশের মধ্যে চলচ্চিত্র বিনিময় সুগম করার লক্ষ্যে একটি সমঝোতাস্মারক প্রণয়নেও প্রাথমিক ঐকমত্য তৈরি হয়েছে’, জানান তথ্যসচিব মরতুজা আহমদ।  ভারতীয় পত্রিকা টাইমস অব ইন্ডিয়ায় প্রকাশিত একটি সংবাদে জানানো হয়, ‘দেবদাস’ চলচ্চিত্রটি পাওয়ার প্রতিক্রিয়ায় ভারতীয় ফিল্ম আর্কাইভের পরিচালক প্রকাশ মাগদাম বলেছেন, ‘ভারতীয় ফিল্ম আর্কাইভের জন্য এটি একটি ঐতিহাসিক মুহূর্ত। ভারতীয় সংস্কৃতি এবং আমাদের সংগ্রহের জন্য এই চলচ্চিত্র অনেক গুরুত্বপূর্ণ ছিল।’ উল্লেখ্য, ‘দেবদাস’ এর ১৯৩৫, ১৯৫৫, ২০০২ এবং ২০০৯ এ নির্মিত হিন্দী এবং ১৯৫৩ সালে নির্মিত তেলেগু ভাষার সংস্করণ থাকলেও ১৯৩৫ সালে প্রথমেশ বড়–য়া পরিচালিত বাংলা ‘দেবদাস’এর কপি ভারতের সংগ্রহে ছিলোনা।

১৯১৩ সালে  দাদাসাহেব ফালকে পরিচালিত উপমহাদেশের প্রথম নির্বাক পূর্ণাঙ্গ চলচ্চিত্র ‘রাজা হরিশচন্দ্র’, ১৯৩১ সালে অমরেন্দ্রনাথ চৌধুরী নির্মিত প্রথম সবাক বাংলা চলচ্চিত্র ‘জামাই ষষ্ঠী’ এবং সুখদেব সিং পরিচালিত ‘নাইন মান্থস্ টু ফ্রিডম : দ্য স্টোরি অভ্ বাংলাদেশ’ এর মতো বিখ্যাত চলচ্চিত্রগুলো শুভেচ্ছার নিদর্শন ও বিনিময়স্মারক হিসেবে ভারতসফররত বাংলাদেশের তথ্য সচিব মরতুজা আহমদের হাতে তুলে দেন ভারতীয় ফিল্ম আর্কাইভের পরিচালক প্রকাশ মাগদাম (চৎধশধংয গধমফঁস) ।

সোমবার ১৭ আগস্ট মহারাষ্ট্রের পুনে’তে ভারতীয় ফিল্ম আর্কাইভে এ বিনিময় অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ দলের অপর সদস্য বাংলাদেশ ফিল্ম আর্কাইভের মহাপরিচালক ড: মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর হোসেন উপস্থিত ছিলেন।  মুক্তিযুদ্ধের ওপর খ্যাতনামা ‘নাইন মান্থস্ টু ফ্রিডম: দ্য স্টোরি অভ্ বাংলাদেশ’ ডকুমেন্টারিটি ১৯৭২ সালের ২১ অক্টোবর জাপানে মুক্তি পেয়েছিল।

তথ্য সচিব মরতুজা আহমদ টেলিফোনে জানান, আন্তর্জাতিকমানের বাংলাদেশ ফিল্ম আর্কাইভ এবং গত বছর ঢাকায় প্রতিষ্ঠিত বাংলাদেশ ফিল্ম এন্ড টেলিভিশন ইনস্টিটিউট (বিএফটিআই) এর উন্নয়নে ভারতীয় প্রতিষ্ঠানগুলোর সাথে সংযোগ বৃদ্ধির ল্েয ন্যাশনাল ফিল্ম আর্কাইভ অভ্ ইন্ডিয়া  (এনএফএআই) ছাড়াও পুনে’র ফিল্ম এন্ড টেলিভিশন ইনস্টিটিউট অভ ইন্ডিয়া (এফটিআইআই), কোলকাতার সত্যজিত রায় ফিল্ম এন্ড টেলিভিশন ইনস্টিটিউট (এসআরএফটিআই) পরিদর্শন এবং তাদের সাথে আলোচনা করছেন।সফরশেষে আগামী ২২ আগস্ট তথ্যসচিবের দেশে ফেরার কথা।

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

ten − 6 =