ফুলে ফুলে ছেয়ে বিদায় নিলেন সকলের প্রিয় ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণী

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

ঢাকা, ৮ মার্চ। সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের ব্যবস্থাপনায় ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণীর প্রতি সর্বস্তরের মানুষের শেষ শ্রদ্ধা নিবেদনের আয়োজন করা হয়। মরদেহ রাখা হয় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে। বেলা ১১টায় জেলা প্রশাসনের একজন সহকারী কমিশনারের নেতৃত্বে তাঁকে গার্ড অব অনার দেওয়া হয়। এরপর নামে হাজারো মানুষের ঢল। স্পিকার, মন্ত্রী, সাংসদ, শিক্ষাবিদ, রাজনীতিবিদ, শিল্পী, সাহিত্যিক, বিভিন্ন সংগঠনসহ সাধারণ মানুষের শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় সিক্ত হন সদা হাস্যোজ্জ্বল প্রিয়ভাষিণী।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে রাখা কফিনে ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণীর  সম্মানে আজ শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন। এসময় তাঁর সাথে ডা. দীপু মনি, এমপি ও পঙ্কজ নাথ এমপিও শ্রদ্ধা নিবেদনে অংশ নেন। স্বাধীনতা পদকে ভূষিত মুক্তিযোদ্ধা ও ভাস্কর ফেরদৌসি প্রিয়ভাষিণী গত ৬ মার্চ মঙ্গলবার ঢাকার একটি বেসরকারী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন। সর্বস্তরের জনগণের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য তাঁর কফিন কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আনা হয়। শ্রদ্ধা নিবেদনের পর স্পিকার বলেন, ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণী বাংলাদেশের সকল গণতান্ত্রিক আন্দোলন ও সংগ্রামে প্রথম সারিতে ছিলেন। 

মুক্তিযোদ্ধা ভাস্কর ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণী জাতীয় পতাকায় মোড়া কফিনে শুয়ে স্বাধীনতার মাসে তার বাংলাদেশ থেকে শেষ বিদায় নিয়েছেন।

জানাজা শেষে মরদেহ মিরপুর বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে নেওয়া হয়। সেখানে শহীদ জননী জাহানারা ইমামের পাশে তাকে সমাহিত করা জানাজা শেষে মরদেহ মিরপুর বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে নেওয়া হয়। সেখানে শহীদ জননী জাহানারা ইমামের পাশে তাকে সমাহিত করা হয় ।

আগামী ১০ মার্চ বিকাল ৪টায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণীর স্মরণে নাগরিক শোকসভার আয়োজন করবে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট।

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

14 − one =