বাতিল হয়ে যেতে পারে এবছরের সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

যৌনহেনস্থা এবং আর্থিক দুর্নীতি এমন পর্যায়ে পৌঁছেছে, যে বাতিলই হয়ে যেতে পারে এবছরের সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার। যদি তাই ঘটে, তাহলে সাত দশকের ইতিহাসে এমনটা হবে প্রথমবার!‌ তবে এর আগে ১৯৪৩ সালে বিশ্বজুড়ে রাজনৈতিক অস্থিরতার জেরে পুরস্কার দেওয়া বন্ধ ছিল। ‌সুইডিশ অ্যাকাডেমির ছ’‌জন সদস্য ইতিমধ্যেই এই ইস্যুতে পদত্যাগ করেছেন। যাঁদের মধ্যে রয়েছে সংস্থার প্রধান সারা ডেনিউস। রয়েছেন আর  ১০ সদস্য। আগামী মঙ্গলবার তাঁরা এক জরুরি বৈঠকে বসে পরবর্তী পদক্ষেপ নিয়ে আলোচনা করবেন। তবে সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রে কমপক্ষে ১২জন সদস্যের সম্মতি লাগে। তাই জটিলতা কী করে কাটবে, সেটা এখনও ধোঁয়াশাতেই।

গত নভেম্বরে ‘‌মি টু’‌ ক্যাম্পেনের সময় সুইডিশ অ্যাকাডেমির ১৮জন মহিলাকর্মী যৌনহেনস্থার অভিযোগ আনেন সংস্থারই এক কর্তার বিরুদ্ধে। ১৯৯৬ থেকে ২০১৭ পর্যন্ত আর্নল্ট নামে ওই কর্তা বিভিন্ন সময়ে ওই মহিলাকর্মীদের যৌন হেনস্থা করেছে বলে অভিযোগ। ওই ১৮জনের মধ্যে দু’‌জন— গ্যাব্রিয়েলা হাকানসন এবং এলিজে কার্লসন সংবাদমাধ্যমের সামনে মুখও খোলেন। পরের দিনই সংস্থার প্রধান সারা জানান আর্নল্টের সঙ্গে সমস্তরকমের সম্পর্ক ছিন্ন করেছে সুইডিশ অ্যাকাডেমি।

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

12 + 20 =