বাধা দিলে কাজ হবে না-দোষীদের উপযুক্ত বিচার করা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

রাজধানীতে বিমানবন্দর সড়কে বেপরোয়া বাসের চাপায় দুই কলেজ শিক্ষার্থী নিহত হওয়ার ঘটনায় দোষীদের উপযুক্ত বিচার করা হবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। মঙ্গলবার মহাখালীতে নিহত কলেজ ছাত্রী দিয়া খানমের বাসায় গিয়ে তার পরিবারের সদস্যদের সান্ত্বনা দেওয়ার পর সাংবাদিকদের এ কথা জানান তিনি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, দিয়ার বাবা, বোন ও মায়ের সঙ্গে আমি কথা বলেছি। এই ঘটনার উপযুক্ত বিচার করার আশ্বাস দিয়েছি তাদের। দুর্ঘটনার জন্য দায়ী গাড়িটির চালক অদক্ষ ছিল এবং গাড়িটিতেও যান্ত্রিক ত্রুটি ছিল বলে শোনা যাচ্ছে। এটা কেন, কিভাবে হলো সেটা দেখে তার বিচার করবো। ইতিমধ্যেই বাসটি জব্দ হয়েছে, চালককে ধরা হয়েছে। তার লাইসেন্স আছে কিনা সেটাও দেখবো। কারণ চালকের লাইসেন্স নেই বলে শোনা যাচ্ছে।

ঘটনার বিচারে নৌমন্ত্রী শাহজাহান খান বাধা দেবেন বলে জনমনে যে সংশয় রয়েছে এ বিষয়ে জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, কারও বিরোধিতা এই ঘটনার বিচারকে বাধাগ্রস্ত করবে না। মন্ত্রী শাজাহান খান সাহেব আমাদের সরকারের অংশ। পরিবহন খাতের শ্রমিকদের নেতৃত্ব দিয়ে থাকেন তিনি। তিনিও বলছেন এর বিচার করতে হবে। উনি বিচার প্রক্রিয়ায় বাধা দেবেন- এমনটি হতেই পারে না। বাধা দেবেন বলে যেই প্রসঙ্গটা আসছে, আমার মনে হয় এই বাধায় কোনো কাজ হবে না। এটার উপযুক্ত বিচার হবেই।

রোববার দুপুরে বিমানবন্দর সড়কে জাবালে নূর পরিবহনের একটি বাসচাপায় শহীদ রমিজউদ্দীন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের শিক্ষার্থী আবদুল করিম ওরফে রাজীব (১৭) ও দিয়া খানম ওরফে মিম (১৬) নিহত হয়।
প্রত্যক্ষদর্শী বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর সমকালকে জানান, ঘটনার সময় শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের শিক্ষার্থীরা র‌্যাডিসনের গ্যাপ দিয়ে রাস্তা পার হচ্ছিলো। অনেকে বাসের জন্য ফুটপাতে দাঁড়িয়ে ছিল। এ সময় জাবালে নূর পরিবহনের একটি বাস এলে শিক্ষার্থীরা উঠতে চেষ্টা করে। তখন জাবালে নূর পরিবহনের আরেকটি বাস এসে আগের বাসটিকে বাম পাশে চাপাতে গিয়ে ওই দুই শিক্ষার্থীকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলে তাদের মৃত্যু হয় এবং আরও ৯ জন আহত হয়।

এই ঘটনার বেপরোয়াভাবে গাড়ি চালিয়ে হত্যার অভিযোগে রোববার রাতে নিহত শিক্ষার্থী দিয়া খানমের বাবা জাহাঙ্গীর আলম ক্যান্টনমেন্ট থানায় মামলা দায়ের করেন।
এদিকে এ ঘটনায় দোষী পরিবহন শ্রমিকদের বিচার ও সড়কে নিরাপত্তা নিশ্চিতের দাবিতে মঙ্গলবার তৃতীয় দিনের মতো রাজধানীর মিরপুর, ফার্মগেটসহ বিভিন্ন এলাকায় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করছেন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা।

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

5 + 18 =