বিজয় দিবস ও বাংলা নববর্ষে মুক্তিযোদ্ধাদের বিশেষ সম্মানী ভাতা

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

আগামী ২০১৮-১৯ অর্থবছরে মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য বিজয় দিবসে পাঁচ হাজার টাকা এবং বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে দুই হাজার টাকাসহ তাদের স্ত্রী, সন্তান ও নাতী-নাতিনীদের জন্য ৪০০ কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব করা হয়েছে।

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের জন্য আগামী অর্থ বছরে মোট ৪ হাজার ২৬০ কোটি ৭০ লাখ টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব করেন। এর মধ্যে অনুন্নয়ন খাতে তিন হাজার ৭১২ কোটি ৭০ লাখ টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত আজ জাতীয় সংসদে ২০১৮-১৯ অর্থবছরের বাজেট বক্তৃতায় এ প্রস্তাব করেন।

মুহিত বলেন, ‘বীর মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য বিদ্যমান মাথাপিছু সম্মানী ভাতার পাশাপাশির উৎসব ভাতাসহ বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা বাড়ানো হচ্ছে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা সমুন্নত রাখা, মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস ঐতিহ্য ও স্মৃতি সংরক্ষণ, তরুণ প্রজন্মের মধ্যে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ছড়িয়ে দেয়া এবং মুক্তিযোদ্ধা, মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও পরবর্তী প্রজন্মের কল্যাণে চলমান কার্যক্রম অব্যাহত রাখা হবে। পাশাপাশি, অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধাদের উন্নত আবাসন সুবিধা সৃষ্টির লক্ষ্যে সারাদেশে ১০ হাজার ফ্ল্যাট নির্মাণের পরিকল্পনাও গ্রহণ করা হয়েছে।

অর্থমন্ত্রী বলেন, মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস সঠিকভাবে নতুন প্রজন্মের কাছে তুলে ধরার লক্ষ্যে ১৯৭১ সালে গণহত্যা-নির্যাতন, বধ্যভূমি, গণকবর চিহ্নিতকরণ, এ সংক্রান্ত তথ্যভান্ডার তৈরি, প্রদর্শনী এবং প্রকাশনার লক্ষ্যে গণহত্যা-নির্যাতন ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক গবেষণা কেন্দ্র স্থাপনের উদ্যোগও গ্রহণ করা হয়েছে।

অর্থমন্ত্রী বলেন, এই বরাদ্দ দিয়ে প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা প্রণয়ন, গেজেট প্রকাশ ও ঘোষিত তালিকা হালনাগাদসহ সাময়িক সনদ প্রদান, যুদ্ধাহত, শহীদ, মৃত. মুক্তিযোদ্ধাসহ সকল মুক্তিযোদ্ধাকে সম্মানী ভাতা প্রদান, যুদ্ধাহত ও শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারকে রেশন প্রদান, যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধাদের দেশে-বিদেশে চিকিৎসা বাবদ আর্থিক সহায়তা, মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের পোষ্যদের আত্মকর্মসংস্থানের লক্ষ্যে বিভিন্ন ট্রেডে প্রশিক্ষণ ও ক্ষুদ্র ঋণ প্রদান, মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাই কার্যক্রম সম্পাদন করা হবে।

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

seven + seven =