বিয়ে-বিচ্ছেদের মাধ্যমে মুক্তি পেলো ফাতিমার শৈশব

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

অবশেষে তালাকের নোটিশের মাধ্যমে মুক্তি পেলো বাল্যবিবাহের শিকার ফাতিমার অভিশপ্ত জীবন।৪ বছর বয়সে বিয়ে দেয় তার বাবা-মা।
ফাতিমা ভারতের উত্তরপ্রদেশের শ্রাভাস্তি জেলার বাসিন্দা। তাঁর বয়স যখন ৪, বাবার পছন্দের পাত্র অর্জুন বকরিদির সঙ্গে তাঁর বিবাহ সম্পন্ন হয়। অর্জুনের বয়স তখন মাত্র ১০। দুই পরিবারের পক্ষ থেকে ঠিক হয় ফাতিমা বড় হলে তাঁকে শ্বশুরবাড়ি পাঠানো হবে। বিয়ের ৪ বছর পর ফাতিমার বাড়িতে আসে অর্জুনের পরিবার। কিন্তু বেঁকে বসেন ফাতিমার বাবা। ৪ বছর আগে মেয়ের বিয়ে দেওয়া ঠিক হয়নি-ফাতিমা বাল্যবিবাহের শিকার হয়েছে, বুঝতে পেরেছেন বাবা। কিন্তু ফাতিমার বাবার সিদ্ধান্ত মানতে নারাজ অর্জুনের পরিবার।পরিশেষে কোর্টে যান দুই পরিবার।ফাতিমার পরিবার চায় ১৮ বছর পর্যন্ত তাঁদের সঙ্গেই থাকুক ফাতিমা।সেই দাবি না মেনে বিবাহ-বিচ্ছেদের আর্জি করে অর্জুনের পরিবার। মামলা চলে এবং শেষ পর্যন্ত বিয়ে-বিচ্ছেদের মাধ্যমে মুক্তি পেলো ফাতিমার শৈশব।

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

one × 3 =