মানবতার বিরল দৃষ্টান্ত:ফেসবুক বন্ধুকে কিডনী দিলেন লুইস ড্রিউরি

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

ফেসবুকে পরিচয় হলেও মানবতা দেখাতে পারেন ক’জন? আর যদি নিজের শরীরের একটি অংশ দান করে দেয়া? সে ও কি সম্ভব? মানুষকে ভালোবাসলে মানবতায় জীবন উৎসর্গ করলে সবই সম্ভব।লুইস ড্রিউরী সেটাই দেখালেন বিশ্ববাসীকে। এক পিতার আকুল আহ্বানে সাড়া দিয়ে তাঁর কন্যাকে বাঁচাতে নিজের কিডনী দান করলেন লুইস। এ দৃষ্টান্ত এখন আলোচনার শীর্ষে !ব্রিটেনের এই মানবতাবাদী নারী দুই সন্তানের মা লুইস ড্রিউয়েরি প্রথম কোনো ব্রিটিশ নাগরিক, যিনি ফেসবুকের সম্পূর্ণ অপরিচিত একজনকে নিজের কিডনি দান করলেন। স্টেসি হিউইট নামে এক মেয়ের বাবা ফেসবুকে অসহায়ভাবে আবেদন করে লিখেছিলেন, কেউ কি তাঁর মেয়েকে কিডনি দান করে বাঁচাবে?
ফেসবুকে আকুল আহ্বানের পোস্টটি পড়ে এক মুহূর্তও ভাবেননি দুই সন্তানের মা লুইস ড্রিউয়েরি। দু’পক্ষের আলোচনার মাধ্যমে নিউক্যাসল কিডনি প্রতিস্থাপন কেন্দ্রে সফল অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে কিডনি দান করলেন লুইস।এখন দু’জনেই সুস্থ।

কিডনী প্রতিস্থাপনের পর লুইস ড্রিউরি মজা করে বলেছেন, “স্ট্রেসির সঙ্গে চিরজীবনের সম্পর্ক তৈরি হয়ে গেল।”
গোটা ব্রিটেন তো বটেই, সারা পৃথিবী শুভেচ্ছা জানাচ্ছে লুইস ড্রিউরিকে। সত্যি, লুইসের মতো করে ক’জন ভাবি আমরা? হ্যাঁ, ভাবতে হবে আমাদের প্রত্যেককে। এভাবেই মানবতার কল্যাণে একাত্ম হবে বিশ্ববাসী!

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

sixteen + twenty =