মৌলভীবাজারে মাদ্রাসাছাত্রীকে ধর্ষণ করেছে অটোরিকশা চালক

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

মৌলভীবাজারের জুড়ীতে বেড়ানোর কথা বলে অটোরিকশার এক চালক (২৭) এক মাদ্রাসাছাত্রীকে (১৪) নির্জন স্থানে নিয়ে ধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।  মঙ্গলবার এ ঘটনা ঘটে। ছাত্রীর  দিনমজুর বাবা (৫০) বলেন, ‘আমার মেয়েটার সর্বনাশ হইয়া গেল। আমি এইটার বিচার চাই।’

জুড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জালাল উদ্দিন বলেন, শারীরিক পরীক্ষার জন্য ওই ছাত্রীকে ২৫০ শয্যার মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হবে। প্রধান আসামিকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। এ বিষয়ে আসামি জুয়েল মিয়ার বক্তব্য জানা সম্ভব হয়নি।

ধর্ষণে সহায়তা করার অভিযোগে এলাকাবাসী রুবেল মিয়া (২২) নামের এক তরুণকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছেন। এ ঘটনায় বুধবার দুপুরে ওই ছাত্রী বাদী হয়ে জুড়ী থানায় মামলা করেছে।
এজাহার, পুলিশ এবং স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ওই ছাত্রী স্থানীয় একটি মাদ্রাসায় নবম শ্রেণিতে পড়ে। তার বাবা পেশায় দিনমজুর। কিছুদিন আগে সে  বড়লেখা উপজেলার উত্তর শাহবাজপুর ইউনিয়নে খালার বাড়িতে বেড়াতে যায়। তখন সেখানকার অফিস বাজার এলাকার বাসিন্দা অটোরিকশার চালক জুয়েল মিয়ার সঙ্গে তার পরিচয় হয়।

মঙ্গলবার বেলা তিনটার দিকে জুয়েল তাঁর সহযোগী রুবেলকে নিয়ে অটোরিকশায় করে ওই ছাত্রীর বাড়ির কাছে যায়। এ সময় জুয়েল  যোগাযোগ করে ওই ছাত্রীকে বাড়ির সামনের সড়কে আসতে বলে। ছাত্রীটি আসার পর জুয়েল বেড়ানোর কথা বলে তাকে গাড়িতে তোলে। গাড়িটি সংরক্ষিত বনের কাছে পৌঁছালে ওই ছাত্রী বিপদ বুঝতে পেরে কান্নাকাটি শুরু করে। পরে জুয়েল তার মুখ চেপে ধরে বনের ভেতরে নিয়ে ধর্ষণ করে।

মাদ্রাসা ছাত্রীকে গাড়িতে উঠতে দেখে স্থানীয় এক মুদি দোকানির সন্দেহ হয়। তিনি স্থানীয় কয়েকজন লোককে নিয়ে দুটি অটোরিকশায় করে জুয়েলের গাড়ির পিছু নেন। সংরক্ষিত বনের কাছে পৌঁছে তারা ধাওয়া করে অটোরিকশাসহ রুবেলকে আটক করেন।রুবেল বলে, ‘আমারে বেড়াইতে যাওয়ার কথা কইয়া জুয়েল আনছে। আমি আগে থাকি কিছু জানি না।’

পরে রুবেলের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, বনের ভেতরে অসুস্থ অবস্থায় ছাত্রীকে পড়ে থাকতে দেখে তাকে বাড়িতে নিয়ে আসেন তারা। ধর্ষণকারী  জুয়েল আগেই পালিয়ে যায়।

ধ্ষিতা ছাত্রীকে স্থানীয়ভাবে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়। খবর পেয়ে সেই দিন রাত ১২টার দিকে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। তখন গাড়িসহ রুবেল এবং ওই ছাত্রীকে পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়। বুধবার বেলা তিনটার দিকে ধ্ষিতা ছাত্রী জুয়েল ও রুবেলকে আসামি করে মামলা করে।

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

4 + 18 =