রাজশাহীতে ট্রাক নিয়ে সক্রিয় সংঘবদ্ধ চক্র:চলন্ত ট্রাকে বাবা-চাচাকে বেঁধে পুত্রকে হত্যা

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

রাজশাহী সিটি হাট থেকে ফেরার পথে জরিপ মৃধা (৩৬) নামে এক গরুব্যবসায়ীর মাথায় হাতুড়ি পিটিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করে তার বাবা চাচা সহ তিনজনকে চলন্ত ট্রাক থেকে ফেলে সংঘবদ্ধ সন্ত্রাসী দল  লুটে নিয়েছে আড়াই লাখ টাকা। বুধবার দিবাগত রাতে রাজশাহীর পবা উপজেলার কুখণ্ডি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছেন ভুক্তভোগীর স্বজন ও পুলিশ।

রাজশাহী সিটি হাটে গরু পছন্দ হয়নি বলে বাবা এবং চাচাকে নিয়ে বাড়ি ফিরে যাচ্ছিলেন জরীপ মৃধা। সন্ধ্যা হবার পর সড়কে কোনো যানবাহন ছিল না। একটি খালি ট্রাক আসছিল ,চালক তাদের নিয়ে যাবে বলে সম্মত হয়। চলন্ত ট্রাকের ভেতরেই বাবা ও চাচাকে বেঁধে জরিপ মৃধাকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে হত্যা করে তাদের আড়ােই লাখ টাকা লুঠ করে নেয় সন্ত্রাসী দল । এরপর ছেলের লাশের সঙ্গে বাবা ও চাচাকে ট্রাক থেকে ফেলে দেওয়া হয়। নিহত জরিপ মৃধার বাড়ি নাটোরের সিংড়া উপজেলার মহিষমারি গ্রামে। তার বাবার নাম আলাল মৃধা ও চাচার নাম রাশিদুল ইসলাম। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার বিকেলে আলাল মৃধা বাদী হয়ে নগরের কাটাখালী থানায় একটি হত্যা মামলা করেন।

কাটাখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জিল্লুর রহমান বলেন, তারা গত বুধবার রাজশাহী সিটি হাটে গরু কিনতে এসেছিলেন। গরুর হাটে  সারাদিন ঘুরে তাদের গরু পছন্দ হয়নি। তারা যখন বাড়ির পথ ধরেন, তখন সন্ধ্যা। তারা গরুর হাট থেকে নগরের আমচত্বর এলাকায় আসেন। সেখানেও কোনো গাড়ি পাননি। কিছু দূর হেঁটে তারা নওদাপাড়া বাস টার্মিনাল এলাকায় আসেন। সেখানে একটি খালি ট্রাক পান। ট্রাকচালক নাটোরের দিকেই যাচ্ছে বলে তাদের জানায়। জরিপ মৃধা তার বাবা ও চাচাকে সঙ্গে করে ট্রাকে উঠে বসেন। সিটি বাইপাস থেকে শাহমখদুম থানা এলাকায় পৌঁছালে ট্রাকচালক তিনজন লোককে তুলে নেয়। সেই তিনজন ট্রাকে উঠেই জরিপের বাবা ও চাচাকে দড়ি দিয়ে বেঁধে টাকা ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে।জরিপ বাধা দিলে হাতুড়ি দিয়ে জরিপের মাথায় আঘাত করে তাকে হত্যা করে সেই তিনজন। এরপর দুর্বৃত্তরা জরীপের কাছে থাকা প্রায় আড়াই লাখ টাকা নিয়ে নেয়। টাকা নেয়ার পর তাদের নিয়ে আশপাশের কয়েকটি এলাকা ঘুরে কুখণ্ডি বাইপাস এলাকায় তিনজনকে ট্রাক থেকে ফেলে দেয়।

রাজশাহী মহানগর পুলিশের মুখপাত্র অতিরিক্ত উপপুলিশ কমিশনার (এডিসি) গোলাম রুহুল কুদ্দুস বলেন, ওই সময় কাটাখালী থানার একটি টহল দল ওই রাস্তা দিয়ে যাচ্ছিল। তারা ওই তিনজনকে পড়ে থাকতে দেখে কাছে যায় এবং সব ঘটনা জানতে পারে। পরে জরিপের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজের মর্গে পাঠানো হয়। জরিপের বাবা ও চাচাকে পুলিশ হেফাজতে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হয়। বৃহস্পতিবার ময়নাতদন্ত শেষে লাশ হস্তান্তর করা হয়। জরিপের বাবা বাদী হয়ে নগরের কাটাখালী থানায় একটি হত্যা মামলা করেন।

গোলাম রুহুল কুদ্দুস আরও বলেন, যারা খুন ও ছিনতাই করেছে, তারা সংঘবদ্ধ একটি চক্র। গভীর রাতে ট্রাক নিয়ে তারা ঘুরে বেড়ায়। তারা যাত্রী পরিবহনের নামে লোক উঠিয়ে সুবিধাজনক স্থানে নিয়ে মারধর করে এবং টাকা ছিনতাই করে নামিয়ে দেয়। ঘটনার পর থেকে ট্রাকটি খুঁজছে পুলিশ। এ ব্যাপারে বিভিন্ন থানায় বেতারবার্তা পাঠানো হয়েছে।

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

seventeen − thirteen =