‘রাজাকারমুক্ত সংসদ, মুক্তিযুদ্ধের চেতনার বাংলাদেশ চাই’

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail
একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি শাহরিয়ার কবির বলেছেন, ভোট কারো জন্য উৎসব হবে আবার কারো জন্য আতংকের হবে এটা হতে পারে না। আমরা মুক্তিযুদ্ধের চেতনার বাংলাদেশ চাই। তাই আমার ভোট আমি যাকে খুশি তাকে নয়; আমার ভোট আমি দেব- মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসীদের দেব। আমরা চাই রাজাকারমুক্ত সংসদ। তিনি আরো বলেন, নৌকা ব্যবহার করে কোনো রাজাকার সংসদে যাবে এটা কোনোভাবেই মেনে নেওয়া হবে না।
যশোর সার্কিট হাউস সভাকক্ষে রবিবার দুপুরে যশোরের সামাজিক সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় তিনি একথা বলেন।
শাহরিয়ার কবির বলেন, অতীতের অভিজ্ঞতার উপর দাঁড়িয়ে ডিসেম্বরে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন হবে ‘মুক্তিযুদ্ধের চেতনার অভিযাত্রা’। এ নির্বাচনকে সামনে রেখে সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাস আর বরদাস্ত করা হবে না। তাই মুক্তিযুদ্ধের চেতনার অভিযাত্রাকে আরো বেগবান করতে হবে।
তিনি আরো বলেন, নির্বাচনের সময় সংখ্যালঘুদের টার্গেট করা হয়। দল জিতলে কিংবা হারলে উভয় ক্ষেত্রেই তাদের প্রতি নির্যাতন, অত্যাচার করা হয়। এবারের নির্বাচনে সাম্প্রদায়িক হামলাকারীদের বোঝাতে চাই ২০০১ সালের মতো চুপ করে আর মার খাব না। এবারের নির্বাচনে সাম্প্রদায়িক সহিংসতা, সন্ত্রাস আর বরদাস্ত করা হবে না।
তিনি সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাস মোকাবেলার জন্য জেলা, উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ে ‘সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাস প্রতিরোধ কমিটি গঠন করার আহ্বান জানিয়ে বলেন, ধর্ম-বর্ণ-নির্বিশেষে সকল মানুষের জন্য নির্বাচনকে গণতান্ত্রিক অধিকার প্রতিষ্ঠার উৎসবে পরিণত করতে হবে। তবেই আমরা মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষ শক্তির বিজয় নিশ্চিত করতে পারব।
এসময় পূর্ব অভিজ্ঞতা ও মতামত ব্যক্ত করেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির পলিট ব্যুরো সদস্য ইকবাল কবির জাহিদ, জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক জিল্লুর রহমান ভিটু, জেলা সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সহ-সভাপতি ফারাজী আহমেদ সাঈদ বুলবুল, পূজা উদযাপন পরিষদের কেন্দ্রীয় সদস্য দীপংকর দাস রতন, জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক যোগেশ দত্ত, সদর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক ডেপুটি কমান্ডার আফজাল হোসেন দোদুল, সমাজকর্মী অর্চণা বিশ্বাস ইভা, জেলা ছাত্র মৈত্রীর সভাপতি শ্যামল শর্মা প্রমুখ। উপস্থিত ছিলেন একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সাধারণ সম্পাদক কাজী মুকুল, যশোর জেলা কমিটির আহ্বায়ক হারুণ অর রশীদ, সদস্য প্রণব দাস, জেলা সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সহ-সভাপতি তরিকুল ইসলাম তারু প্রমুখ।

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

ten − 5 =