panchagorr Moth Killing

শিবির-জেএমবি’র পরিকল্পিত কিলিং মিশন:পঞ্চগড়ের মঠ অধ্যক্ষ যজ্ঞেশ্বর হত্যা

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জে মঠের অধ্যক্ষ  হত্যায় জড়িত নিষিদ্ধঘোষিত জেএমবির আরও তিন সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে  পুলিশ । শিবিরের এক ক্যাডার সরাসরি হত্যায় অংশ নেয়।২১ ফেব্রুয়ারি সকালে পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জ উপজেলায় হিন্দু মঠের অধ্যক্ষ যজ্ঞেশ্বর রায়কে (৫০) গলা কেটে হত্যা করে শিবির -জেএমবি’র ঘাতকেরা। গুলিবিদ্ধ হন মঠের একজন সাধু। সেই রাতে ওই এলাকায় নিজ নিজ বাড়ি থেকে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন জেএমবি’ দুই সদস্য খলিলুর রহমান ও বাবুল হোসেনকে গ্রেপ্তার করা হয়। জাহাঙ্গীর আলম (৩০) নামে ছাত্রশিবিরের আরেজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে দেবীগঞ্জ থানাচত্বরে সংবাদ সম্মেলনে রংপুর অঞ্চলের পুলিশের উপ মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) হুমায়ুন কবির আরো জানান সেই এলাকার একটি বাড়ি থেকে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে।

এর আগে রংপুরে কুনিও হোশি হত্যা, দিনাজপুরে খ্রিষ্টান  পাদ্রী ও হোমিও চিকিৎসককে হত্যার চেষ্টার ঘটনায় ব্যবহৃত অস্ত্রের সঙ্গে এসব অস্ত্রের মিল রয়েছে।হত্যাকাণ্ডে মোট আটজন জড়িত ছিলেন। এ পর্যন্ত ছয়জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অন্য দুজনকেও শিগগিরই ধরা হবে। হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত দুটি পিস্তল, পাঁচটি গুলি, তিনটি ম্যাগাজিন, তিনটি ছুরি ও তিনটি ককটেল উদ্ধার করেছে পুলিশ।ডিআইজি হুমায়ুন বলেন,  তাঁরা হত্যাকাণ্ডের পুরো রহস্য উদঘাটন করতে পেরেছেন। এর আগে গ্রেপ্তার হওয়া দুই জেএমবি সদস্যর দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে এই তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হলো।হত্যাকাণ্ডের পর মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেট (আইএস) দায় স্বীকার করে বলে দাবি করেছে জঙ্গিগোষ্ঠীর ইন্টারনেটভিত্তিক তৎপরতা নজরদারিতে যুক্ত যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক সাইট ইন্টেলিজেন্স গ্রুপ। সাইটের প্রধান রিটা কাৎর্জ  যথারীতি এক টুইটার বার্তায় একথা জানান।আইএসের দায় স্বীকারের বিষয়টি সঠিক নয় বলছে পুলিশ।

গত ২৮ সেপ্টেম্বর থেকে ৭ জানুয়ারি পর্যন্ত ঢাকাসহ বিভিন্ন জেলায় দুই বিদেশি নাগরিক হত্যা, একাধিক খ্রিষ্টান পাদরিকে হত্যার চেষ্টা এবং আহমদিয়া ও শিয়া সম্প্রদায়ের মসজিদে বোমা হামলাসহ নয়টি ঘটনায় আইএস দায় স্বীকার করেছিল, যা আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমেও এসেছিল। তবে শুরু থেকেই বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে এসব দাবি জোরালোভাবে নাকচ করে বলা হয়েছে, এ দেশে আইএসের কোনো অস্তিত্ব নেই। পঞ্চগড়ের  এ ঘটনার আগে সর্বশেষ হত্যাকান্ড ঘটেছিল গত ৭ জানুয়ারি ঝিনাইদহে। সেদিন ধর্মান্তরিত এক হোমিও চিকিৎসককে জামাত জেএমবি জঙ্গী ঘাতকেরা নির্মমভাবে হত্যা করে।

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

seventeen − 5 =