শ্রীজাতর পর এবার আক্রান্ত মন্দাক্রান্তা, ফেসবুকে গণধর্ষণের হুমকি

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

শ্রীজাতর পর এবার মন্দাক্রান্তা সেন। কবিতা কাণ্ডে কবি শ্রীজাতর পাশে দাঁড়ানোর জন্য সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইট ফেসবুকে গণধর্ষণের হুমকি দেওয়া হল সাহিত্য অ্যাকাডেমি জয়ী এই বিশিষ্ট কবিকে। গোটা ঘটনার কথা তিনি ফেসবুকে স্টেটাসে জানিয়েছেন। পাশাপাশি বুধবার নিজের আইনজীবীর পরামর্শে লালবাজারে কলকাতা পুলিশের সাইবার ক্রাইম শাখায় অভিযোগ দায়ের করলেন তিনি। গণধর্ষণের হুমকি দেওয়া অভিযুক্ত রাজা দাসের বিরুদ্ধে আইনি পথে হাঁটার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন এই বামপন্থী বিদ্বজ্জন।

প্রসঙ্গত, শ্রীজাত কিছুদিন আগে ফেসবুকে ‘অভিশাপ’ নামে একটি কবিতা পোস্ট করেন। কবিতার শেষ লাইনে ‘ত্রিশূলে কন্ডোম’ পরানোর কথা থাকায় হিন্দু সংহতির এক সদস্য শিলিগুড়ি পুলিশ কমিশনারেটে শ্রীজাতর বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করেন। জামিন অযোগ্য ধারায় মামলা রুজু করে পুলিশ। হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের ভাবাবেগে আঘাত করার অভিযোগ তোলা হয় শ্রীজাতর বিরুদ্ধে।

সেই ঘটনারই প্রতিবাদে শ্রীজাতর পাশে দাঁড়িয়ে মন্দাক্রান্তা-সহ বেশ কিছু বিশিষ্ট ব্যক্তিত্ব গত শনিবার কলেজ স্কোয়্যারে একটি পথসভার আয়োজন করেন। তারপর সেখান থেকে ধর্মতলার ওয়াই চ্যানেল পর্যন্ত একটি প্রতিবাদ মিছিল করা হয়। ফেসবুকেই সেই কর্মসূচির কথা জানিয়েছিলেন মন্দাক্রান্তা।

তারপর সেইদিনই সন্ধেয় ফেসবুকে একটি স্টেটাস দেন মন্দাক্রান্তা। তাতে তিনি লেখেন, ‘আজ কবি শ্রীজাতর ওপর নেমে আসা রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে একটি মিছিল আহ্বান করা হয়েছিল। আমি এবং আমরা কজন এই মিছিল আহ্বান করেছিলাম । সম্পূর্ণ অরাজনৈতিক এই মিছিলে দলমত নির্বিশেষে সমাজের বিভিন্ন স্তরের মানুষকে যোগ দিতে ডাক পাঠানো হয়েছিল।

কিন্তু সেখানে কেউ বা কারা অতি উৎসাহে বা উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ভাবে এই মিছিলকে রাজনৈতিক চেহারা দেওয়ার চেষ্টা করেন। এতে কিছু সাধারণ মানুষ, যাঁরা রাজনীতি করেন না, তাঁরা বিরক্ত হয়ে মিছিল ছেড়ে চলে যান। যদিও কবির বাক-স্বাধীনতার ওপর নেমে আসা এই আক্রমণ যে রাজ্যের প্রশাসনেরই দায় তা অস্বীকার করা যাবে না।

যাই হোক, বন্ধুদের যোগদানে মিছিল সফল হয়েছে এবং আশা করি এই বার্তাটুকু আমরা পৌঁছে দিতে পেরেছি যে শ্রীজাত একা নন, বহু মানুষ তাঁর পাশে আছেন।’

এরপর বিভিন্ন মানুষ সেই স্টেটাসে নানান রকম কমেন্ট করতে থাকেন। কিন্তু বুধবার মন্দাক্রান্তা দেখেন, রাজা দাস নামে এক ব্যক্তি অশালীন ভাষায় আক্রমণ করেছেন তাঁকে। কমেন্টে গণধর্ষণের হুমকি দিয়েছেন।

এরপরই তিনি কলকাতা হাইকোর্টে নিজের আইনজীবীর সঙ্গে একটি মামলা দায়ের করেন এবং লালবাজারে নিজের অভিযোগ জানান। গোটা ঘটনায় মন্দাক্রান্তার বক্তব্য, ‘শুধু শ্রীজাত নয়, সবধরনের শিল্পীরই বাক স্বাধীনতা আছে। মত প্রকাশের স্বাধীনতা দেখালে যদি গণধর্ষণের হুমকি পেতে হয় তাহলে এখনই ভাবার সময় এসে গিয়েছে।

পরিস্থিতি আরও খারাপ দিকে যাওয়ার আগেই প্রশাসনের ব্যবস্থা নেওয়া উচিত। তাই পুলিশের দ্বারস্থ হয়েছি।’ অসহিষ্ণুতার অভিযোগে যে কবি সাহিত্য অ্যাকাডেমি পুরস্কার ফিরিয়ে দিয়েছেন সেই মন্দাক্রান্তাকে ধর্ষণের হুমকি সমাজকে এক বিরাট প্রশ্নচিহ্নের সামনে দাঁড় করাচ্ছে।

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

eighteen − 5 =