সংঘর্ষে নিহত ১:প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

চট্টগ্রামে প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ে সংঘর্ষের পর  সোহেল আহমেদ নামে বিবিএ প্রথম সেমিষ্টারের এক ছাত্র নিহত হয়েছে।ঘটনার পর প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করেছে কর্তৃপক্ষ। পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত ক্যাম্পাস বন্ধ থাকবে।

মঙ্গলবার দুপুর ১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়াসা ক্যাম্পাসে এ হতাহতের  ঘটনা ঘটে।

ঘটনার প্রতিবাদে শিক্ষার্থীরা নগরের প্রবর্তক মোড়ে সড়ক অবরোধ করে  বেশ কিছু যানবাহন এবং দোকানপাট ভাংচুর করে। একই সাথে  বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনে ভাঙচুর চালায় বিক্ষুব্ধ ছাত্ররা। সড়কে ব্যারিকেড দিয়ে রাখায়  চট্টগ্রামের গুরুত্বপূর্ণ এ সড়কে দীর্ঘসময় ধরে যানজটের সৃষ্টি হয়। এতেএ এলাকার একমাত্র সরকারী মেডিকেল কলেজ এবং অন্যান্য প্রাইভেট মেডিকেল কলেজের রোগী এবং তাদের স্বজনদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়। স্কুল এবং কলেজ ফেরত শিক্ষার্থীরা  এ সময়ে নিরাপত্তাহীনতা এবং যানবাহনের সংকটে বেশ দুর্ভোগে পড়েন।

ঘটনাস্থলে উপস্থিত শিক্ষার্থীরা সাংবাদিকদের জানান, ৩১ মার্চ বিশ্ববিদ্যালয়ে অষ্টম সেমিস্টারের বিদায়ী অনুষ্ঠানের মহড়া চলছিল মঙ্গলবার । এ সময়ে ছাত্রদের দুই গ্রুপে দ্বন্দ্ব সৃষ্টি হয়।

দুপুর ১টার দিকে ১৫/২০ জন যুবক লাঠিসোঁটা ও ধারালো অস্ত্র নিয়ে মহড়া কক্ষে থাকা শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা চালায়। এ সময় চারজন গুরুতর আহত হন। এর মধ্যে সোহেল আহমেদকে একটি বেসরকারি ক্লিনিকে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে অবস্থার অবনতি ঘটলে তাঁকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। দায়িত্বরত চিকিৎসক  সোহেলকে মৃত ঘোষণা করেন।

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

thirteen + nineteen =