সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ দমনে বাংলাদেশের পাশে সৌদি আরব

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ দমনে বাংলাদেশের পাশে সৌদি আরব। এমন আশ্বাস দিয়েছেন সৌদি-বাংলাদেশ পার্লামেন্টারি ফ্রেন্ডশিপ কমিটির প্রধান ড. আব্দুল্লাহ মউদ আল হারবি।  জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার মো. ফজলে রাব্বী মিয়ার সঙ্গে বৈঠককালে তিনি এ আশ্বাস দেন।

যুদ্ধাপরাধীদের মৃত্যুদণ্ড নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে ডেপুটি স্পিকার বলেন, স্বাধীনতা যুদ্ধে শুধু বিরোধিতাই নয়, নির্বিচারে মানুষ হত্যা ও মানবতাবিরোধী অপরাধে তারা অভিযুক্ত। তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় আদালত শাস্তির আদেশ দিয়েছেন। সরকার আদালতের রায় কার্যকর করছে। সৌদি আরবে বিচার হলেও ওই অপরাধীদের একই শাস্তি হতো বলে তিনি দাবি করেন।

এসময় ড. আব্দুল্লাহ ডেপুটি স্পিকারের সঙ্গে একমত পোষণ করেন। তিনি আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পদক্ষেপে সৌদি সরকারের সহযোগিতার প্রতিশ্রুতি দেন। এসময় ডেপুটি স্পিকার জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস দমনেও সৌদি সরকারের সমর্থন ও সহায়তা চান।

বৃহস্পতিবার (৩০ এপ্রিল) বিকেলে পবিত্র ওমরাহ্ পালন শেষে দেশে ফিরে এ কথা জানিয়েছেন ডেপুটি স্পিকার। সৌদি আরব সফরকালে গত ২৮ এপ্রিল সৌদি আরবের মজলিস-ই সুরায় অনুষ্ঠিত ওই বৈঠকে সংসদ সদস্য এ কে এম এ আউয়াল ও সে দেশের এমপিদের সংগঠন সৌদি-বাংলাদেশ পার্লামেন্টারি ফ্রেন্ডশিপ কমিটির সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। এসময় দুই দেশের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা হয়।

আলাপকালে ডেপুটি স্পিকার বাংলাদেশ থেকে আরও বেশি জনশক্তি আমদানির আহ্বান জানান। এ বিষয়ে ড. আবদুল্লাহ মউদ আল হারবি জানান, বাংলাদেশ থেকে জনশক্তি আমদানির ক্ষেত্রে সৌদি সরকারের আন্তরিকতার ঘাটতি নেই। এক্ষেত্রে বাংলাদেশ সরকারের প্রস্তাব সৌদি সরকার গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করবে।

এদিকে সৌদি আরবে অবস্থানকালে ডেপুটি স্পিকার সেখানকার বাংলাদেশিদের সুবিধার্থে মদিনা শরীফে একটি পাসপোর্ট অফিসের উদ্বোধন করেন। পবিত্র ওমরাহ্ পালনের জন্য তিনি গত ২৩ এপ্রিল সৌদি আরবে যান।

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

five × 4 =