সাম্প্রদায়িক, বর্ণবিদ্বেষ, সন্ত্রাসবাদ, যৌনতাউদ্রেককারী অ্যাকাউন্ট মুছে দেবে ফেসবুক

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

১৩০ কোটি অ্যাকাউন্ট মুছে দেবে ফেসবুক। হিংসাত্মক, বর্ণবিদ্বেষমূলক, সন্ত্রাসবাদ সমর্থনকারী, যৌনতাউদ্রেককারী এবং মিথ্যা খবর কিংবা ছবি থাকবে যে সমস্ত প্রোফাইলে, সেগুলির এই ছাঁটাইয়ের তালিকায় পড়বে।

এমনিতেই সম্প্রতি বারেবারে ফেসবুকের বিরুদ্ধে উঠেছে তথ্য ফাঁসের অভিযোগ। তার সঙ্গে রয়েছে ফেক প্রোফাইল ঘিরে অজস্র অভিযোগ। তাই এবার কড়া পদক্ষেপ করা হবে ফেসবুকের পক্ষ থেকে। যদিও  হিংসাত্মক, বর্ণবিদ্বেষমূলক, সন্ত্রাসবাদ সমর্থনকারী, যৌনতাউদ্রেককারী ছবি ভিডিও এবং পোস্টের ক্ষেত্রে ইতিমধ্যেই কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা প্রযুক্তির ব্যবহার করেছে ফেসবুক। কিন্তু সেটা যে যথেষ্ট সক্ষম নয়, সেটাও স্বীকার করে নেওয়া হয়েছে ফেসবুকের পক্ষ থেকে। তাই আরও বেশি করে কর্মীদের নজরদারিতে নিয়োগ করা হবে।

বিশেষত সাম্প্রদায়িক হিংসা ছড়ানোর ক্ষেত্রে আরও বেশি করে নজরদারি চালানো হবে। বলা হয়েছে, ‘‌ধর্মীয় উত্তেজনা ছড়ানোর ক্ষেত্রে অনেকেই ফেসবুককে ব্যবহার করছেন। এ বিষয়ে কড়া নজরদারি চালানো হবে।’‌

ঠিক কতগুলি পোস্ট বা প্রোফাইল মুছে দেওয়া হবে?‌ তারও পূর্ণাঙ্গ তালিকা প্রকাশ করেছে ফেসবুক। ২০১৭ সালে হিংসাত্মক বিষয় পোস্ট করার ক্ষেত্রে চিহ্নিত করা হয়েছে ১২ লক্ষ প্রোফাইল। ২০১৮ সালে এই সংখ্যাটা ৩.‌৪ লক্ষ। ধর্ম বা জাতি তুলে ঘৃণাসূচক মন্তব্য, ছবি বা ভিডিও পোস্ট  করার জন্য ২০১৭ সালে  চিহ্নিত করা হয়েছে ১৬ লক্ষ প্রোফাইল। ২০১৮ সালে এই সংখ্যাটা ৩৮ লক্ষ। ২০১৭ সালে পর্নোগ্রাফি বিষয়ক পোস্ট করার ক্ষেত্রে চিহ্নিত করা হয়েছে ২১ লক্ষ প্রোফাইল। ২০১৮ সালে এই সংখ্যাটা আরও ২১ লক্ষ। ২০১৭ সালে সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপকে সমর্থন করে
পোস্ট করার ক্ষেত্রে চিহ্নিত করা হয়েছে ১১ লক্ষ প্রোফাইল। ২০১৮ সালে এই সংখ্যাটা ১৯ লক্ষ। ২০১৭ সালে ভুয়ো পরিচয় দিয়ে হিংসাত্মক বিষয় পোস্ট করার ক্ষেত্রে চিহ্নিত করা হয়েছে ৬ কোটি ৯৪ লক্ষ প্রোফাইল। ২০১৮ সালে এই সংখ্যাটা ৫ কোটি ৮৩ লক্ষ।

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

5 × 4 =