সিলেট নগরীর স্কলার্সহোমে ‘এক্সক্লুসিভ ডিভাইস (আইডি), র‌্যাবের বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিট নিষ্ক্রিয়করণে ব্যস্ত

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

সিলেট নগরীর শাহী ঈদগাহস্থ স্কলার্সহোমে  ‘এক্সক্লুসিভ ডিভাইস (আইডি)’ নিষ্ক্রিয় করতে ঢাকা থেকে র‌্যাবের বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিটের সদস্যরা সিলেট নগরীর শাহী ঈদগাহস্থ স্কলার্সহোমে যাচ্ছেন। মঙ্গলবার বিকালে র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার সিনিয়র সহকারী পরিচালক মো. মিজানুর রহমান এ তথ্য জানিয়েছেন।

সিলেট নগরীর শাহী ঈদগাহস্থ স্কলার্সহোমের ভবনের সিঁড়ির নিচে থাকা বোমাসদৃশ বস্তুটি ‘এক্সক্লুসিভ ডিভাইস-আইডি’ বলে বলছে র‌্যাব।

সিলেট নগরীর শাহী ঈদগাহস্থ স্কলার্সহোমে পাওয়া ‘এক্সক্লুসিভ ডিভাইস’টি শিক্ষক, শিক্ষার্থী বা কর্মচারীদের কেউ রেখেছে বলে মন্তব্য করেছেন স্কুলের প্রিন্সিপাল ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) জুবায়ের সিদ্দিকী। মঙ্গলবার বেলা ২টার দিকে সাংবাদিকদের কাছে এমন মন্তব্য করেন তিনি।
জুবায়ের সিদ্দিকী বলেন, ‘স্কলার্সহোম ক্যাম্পাসে সবসময়ই নিরাপত্তা জোরদার থাকে। মূল ভবনের ভেতরে অভিভাবকসহ কাউকেই প্রবেশ করতে দেওয়া হয় না। ক্লাসে কোনও শিক্ষার্থী প্রবেশ করার সময় তাদেরকে চেকিংয়ের মাধ্যমে প্রবেশ করানো হয়। তাই এ বোমা রাখার ঘটনা বাইরের কারও ঘটনোর সুযোগ নেই।’

তিনি আরও বলেন, ‘ক্যাম্পাসের সিসিটিভির ফুটেজ র‌্যাবের সদস্যরা সংগ্রহ করেছেন। তবে ক্যাম্পাসের মূল ভবনের সিঁড়ির পাশে কে বা কারা বোমাটি রেখেছে তা ক্যামেরায় ধরা পড়েনি। বোমাটি এটা কালো পলিথিন দিয়ে প্যাকেট করা ও লাল টেপ দিয়ে মোড়ানো।’

মঙ্গলবার সকালে স্কলার্সহোম স্কুল কর্তৃপক্ষ সিঁড়ির নিচে একটি বোমাসদৃশ বস্তু দেখতে পায়। বিষয়টি তাৎক্ষণিকভাবে বিমানবন্দর থানা পুলিশকে অবহিত করা হয়। পুলিশ বিষয়টি জানায় র‌্যাবকে।

মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপকমিশনার জেদান আল মুসা জানান, খবর পেয়ে দ্রত ঘটনাস্থলে যায় পুলিশ। আসে র‌্যাবের টিমও। দুপুরের দিকে ঘটনাস্থলে আসে র‌্যাব-৯ এর একটি টিম।

পরে র‌্যাব-৯ এর মিডিয়া উইং প্রধান এএসপি মো. ইউনুস সাংবাদিকদের জানান, স্কুলের সিঁড়ির নিচে পড়ে থাকা ওই বস্তুটি একটি এক্সক্লুসিভ ডিভাইস বা আইডি বলে ধারণা করা হচ্ছে। এটি নিষ্ক্রিয় করতে কিছুটা সময় লাগবে।

এদিকে, ঘটনাস্থলের আশপাশ থেকে প্রশাসন ও গণমাধ্যমকর্মীরা ছাড়া বাকি সবাইকে সরিয়ে দেয়া হয়েছে। বেলা পৌনে ১টার দিকে স্কুলটি ছুটি দেয় কর্তৃপক্ষ। শিক্ষার্থীরা বের হওয়ার পর সোয়া ১টার দিকে বেরিয়ে যান স্কুলের শিক্ষকরা।

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

three × 2 =