সীতাকুন্ডের কুমিরা ইউনিয়নে মহাশ্মশানে হামলা: আহত অন্তত ১০ জন

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

প্রতিনিধি, সীতাকুন্ডু (চট্টগ্রাম): চট্টগ্রামের সীতাকুন্ডের কুমিরা ইউনিয়নের মগপুকুর এলাকায় মহাশ্মশান দখলের অপচেষ্টায় হামলা করেছে সালাউদ্দীন নামে স্থানীয় এক প্রভাবশালী দখলদার।  এই হামলায়  নিরীহ সংখ্যালঘু পরিবারের  অন্তত ১০ জন সদস্য আহত হয়েছেন। শ্মশানের মোট ভুমি ছিল ৮৮ শতক। বিএস জরিপে হাইওয়ে সড়ক বাদ দিয়ে ৬২ শতকের অবশিষ্ট জায়গাটুকুও দখলে নিতে চায় সন্ত্রাসী সালাউদ্দীন। বেশ কয়েকবার জোর করে দখল করতে গিয়ে ব্যর্থ হয় সালাউদ্দিন। অবশেষে রোববার  সন্ত্রাসী কায়দায়  দখল করতে চায় এই ভয়ংকর দখলদার। ১৫-২০ জন সন্ত্রাসী নিয়ে শ্মশান এলাকায় হিন্দুদের শ্মশানের ওপর ঘর তোলার চেষ্টা করে সালাউদ্দিন।এতে বাধা দিলে সন্ত্রাসীদের হামলায় নারী ও শিশুসহ অন্তত ১০ জন আহত হয়েছে। এঘটনায় স্থানীয় সংখ্যালঘুরা মহাসড়কে দাঁড়িয়ে ২০ মিনিট মহাসড়ক অবরোধ করে। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।
পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, রোববার গুল আহম্মদ জুটমিলস এলাকার এটিএম সালাউদ্দিন নামে এক প্রভাবশালী দখলবাজ অন্তত ১৫-২০ জন বহিরাগত সন্ত্রাসী নিয়ে মহাশ্মশানের জায়গা দখল করে ঘর নির্মাণের কাজ শুরু করে। খবর পেয়ে স্থানীয় হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজন ঘর নির্মাণ কাজে বাধা দেয়। এ সময় সন্ত্রাসীরা সংখ্যালঘুদের ওপর দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়। এতে মহুরীপাড়ার বিপুল দাশ (১৭), মিনু দাশ (৫০), অঞ্জলী দশ (৫০), শ্যামল চক্রবর্তী (৩৮), বাসু দাশ (২৮), দিপ্তি মহুরী (৩২), নাথপারার সুজন নাথ (২৮), দাসপাড়ার রতন দাস (১৯)সহ অন্তত ১০ জন আহত হন। আহতদেরকে সীতাকুন্ড স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।
মহাশ্মশান কমিটি সাধারণ সম্পাদক গোবিন্দ শীল বলেন, ওই মহাশ্মশানে অন্তত দুই হাজার ভূমিহীন পরিবারের প্রয়াত লোকেদের সৎকার করা হয়। আরএস জরিপে শ্মশানের মোট ভুমি ছিল ৮৮ শতক। বিএস জরিপে হাইওয়ে সড়ক বাদ দিয়ে ৬২ শতকে এসে দাঁড়ায়।সেই অবশিষ্ট জায়গাটুকুও দখলে নিতে চায় সন্ত্রাসী সালাউদ্দীন। এভাবে বেশ কয়েকবার জোর করে দখল করতে চেয়েছিল। কাগজপত্র ঠিক থাকায় চেষ্টা করেও পারেনি। সন্ত্রাসী কায়দায় এখন দখল করতে যান তিনি। বাঁশবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান শওকত আলী জাহাঙ্গীর বলেন, ওই জায়গা নিয়ে নিন্ম আদালতে মামলা হয়েছিল। সালাউদ্দিন নিজে ওই মামলা করেছিলেন। কিন্তু হেরে যান। পরে আপীল করেন উচ্চ আদালতে। বিচারাধীন বিষয়টি মিমাংসা না হতে তিনি আবারও দখলের চেষ্টা করেন। জানতে চাইলে সীতাকু- থানার উপপরিদর্শক(এসআই) জয়নাল আবেদিন বলেন, ওই জায়গাটি হিন্দুদের মহাশ্মশানের জায়গা। সালাউদ্দীন নামে ওই ব্যক্তি জায়গাটি তার দাবি করে ঘর তুলতে চেষ্টা করেছিলেন। এতে হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজন ক্ষিপ্ত হলে উভয় পক্ষের মধ্যে বাগবিত-া শুরু হয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। আহত হওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, হাতাহাতি হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এতে কয়েকজন কিছুটা আহত হয়েছে। উভয়পক্ষকে তাদের সংশ্লিষ্ট কাগজপত্র নিয়ে থানায় হাজির হতে বলেছেন তিনি।

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

14 − eleven =