সেনা অভ্যুত্থান জিম্বাবোয়েতে, গৃহবন্দি প্রেসিডেন্ট

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

সেনা অভ্যুত্থান জিম্বাবোয়েতে। দেশের পার্লামেন্ট সহ অধিকাংশ সরকারি ভবন এখন সেনার দখলে। শুধু তাই নয়, প্রেসিডেন্ট রবার্ট মুগাবেকে গৃহবন্দি করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। যদিও সেনা অভ্যুত্থানের খবর সম্পূর্ণ উড়িয়ে দিয়েছেন সেনাপ্রধান।
মুগাবের কয়েক দশকের সরকার মঙ্গলবার থেকে সংকটে পড়ে। হারারে শহরে সেনাবাহিনী পার্লামেন্টের রাস্তা আটকে দাঁড়িয়ে যায়। পরে মধ্যরাতে সরকারি টেলিভিশনে জাতির উদ্দেশ ভাষণে সেনাপ্রধান মেজর জেনারেল সিবুসিসো মোয়ো বলেন, প্রেসিডেন্ট এবং তাঁর পরিবার সুরিক্ষত। আমরা শুধু প্রেসিডেন্টের চারিদিকে ঘিরে থাকা অপরাধীদের চিহ্নিত করে সাজা দিতে চাইছি। মিশন শেষ হলে পরিস্থিতি ফের স্বাভাবিক হয়ে যাবে। তবে, অপরাধী বলতে তিনি কাদের বোঝাতে চেয়েছেন, তা স্পষ্ট নয়। ১৯৮০ সালে ব্রিটেন থেকে স্বাধীনতা লাভের পর দীর্ঘ ৩৭ বছর জিম্বাবোয়ের প্রেসিডেন্ট পদে বসে আছেন রবার্ট মুগাবে। এখন তাঁর বয়স ৯৩। অসুস্থতার কারণে বর্তমানে তিনি সক্রিয় রাজনীতি থেকে বেশ কিছুটা দূরে। এই পরিস্থিতিতে অরাজকতা বাড়ছে। সেনা অভ্যুত্থান তারই পরিণতি। বর্ষীয়ান নেতা এবং সেনাবাহিনীর মধ্যে দীর্ঘদিন ধরেই বিভিন্ন ইস্যুতে মতবিরোধ চলছে। শাসক দল জেএএনইউ-পিএফ সেনাপ্রধানের বিরুদ্ধে দেশদ্রোহিতার অভিযোগ তুলেছে। জিম্বাবোয়ের রাজনৈতিক পরিস্থিতি ক্রমশ জটিল হয়ে ওঠায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র তাদের নাগরিকদের অবিলম্বে দেশে ফিরে আসার নির্দেশ দিয়েছে। উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন প্রতিবেশী রাষ্ট্র দক্ষিণ আফ্রিকা। প্রেসিডেন্ট জ্যাকব জুমা জানিয়েছেন, তিনি জিম্বাবোয়ের প্রেসিডেন্টের সঙ্গে ফোনে কথা বলেছেন। তিনি নিরাপদে আছেন।

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

4 × 1 =