সৌদি আরবে গণধর্ষণের শিকার এক নারীকে ২০০ বেত্রাঘাত এবং ছয় মাসের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

Gangraped-Saudi-woman

সৌদি আরবে গণধর্ষণের শিকার এক নারীকে ২০০ বেত্রাঘাত এবং ছয় মাসের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। সংবাদ মাধ্যমের কাছে ধর্ষণের বিষয় প্রকাশ করে কথা বলা এবং তার মাধ্যমে সংঘটিত অশোভন আচরণের দায়ে হতভাগ্য নারীকে এ শাস্তি দেয়া হয়।

২০০৬ সালে ১৯ বছর বয়সী এ নারী অন্য এক সতীর্থের সঙ্গে গাড়িতে করে ফিরছিলেন। সে সময় দুই ব্যক্তি জোর করে গাড়িতে ওঠে এবং একটি নির্জন এলাকায় গাড়িটিকে নিয়ে যায়। সেখানে সাত পাষণ্ড তাকে গণধর্ষণ করে।

অনাত্মীয়ের সঙ্গে গাড়িতে চড়ার দায়ে এ নারীকে প্রথমে ৯০টি বেত্রাঘাতের নির্দেশ দিয়েছিল আদালত। সৌদি আইন অনুযায়ী- প্রকাশ্য স্থানে চলাফেরার সময় একজন নারীর সঙ্গে একজন পুরুষ আত্মীয়কে থাকতে হবে।

অন্যদিকে সৌদি আইনে প্রাণদণ্ডের বিধান থাকা সত্ত্বেও ধর্ষকদের মাত্র ৫ বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়। সৌদি দৃষ্টিতে একে হালকা শাস্তি হিসেবে গণ্য করা যেতে পারে।

আদালতের এ রায়ের বিরুদ্ধে ওই নারীর আইনজীবী আবদুর রহমান আল-লাহেম সৌদি জেনারেল কোর্টে আপিল করেন। কিন্তু এবার হিতে বিপরীত হয় এবং সংবাদ মাধ্যমের সঙ্গে কথা বলার কথিত অশোভনআচরণের অপরাধে ধর্ষণের শিকার হতভাগ্য নারীর শাস্তি দ্বিগুণের বেশি করে দেয় আদালত। একই সঙ্গে আইনজীবী আল-লাহেমের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয় আদালত এবং তার মামলা পরিচালনার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে। চলতি মাসের শেষের দিকে শৃঙ্খলা কমিটির সামনে হাজির হওয়ার জন্য আইনজীবীর বিরুদ্ধে সমন জারি করা হয়েছে।

এরই মধ্যে অনেক রাজনীতিবিদ এবং মানবাধিকার সংস্থা সৌদি আদালতের এ রায়ের কঠোর সমালোচনা করেছেন।

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

9 − one =