স্বাধীনতা দিবসে হামলার ছক রুখতে কড়া প্রহরায় দিল্লি

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

ছদ্মবেশে মানুষের সঙ্গে মিশে থেকে হামলার ছক ভণ্ডুল করা তো বটেই, আকাশপথে কোনওভাবে যাতে হামলা না হয়, তারই লক্ষ্যে স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে কড়া প্রহরায় দিল্লি। ভারতের রাজধানীর রাস্তার দেওয়ালে দেওয়ালে সন্দেহজনক সন্ত্রাসবাদীদের ছবি সহ নামের পোস্টার লাগানোর পাশাপাশি আকাশে কোনও ড্রোন উড়ছে কি না, তা নিয়ে বাড়তি নজর রাখা হচ্ছে।

মাটিতে প্রস্তুত দিল্লি পুলিসের বিশেষ মোটরসাইকেল স্কোয়াড। মোড়ে মোড়ে চলছে চেকিং। লালকেল্লার আশেপাশে ঘোরাফেরা করা ব্যক্তির মুখের ছবি স্ক্যান করার জন্য লাগানো হয়েছে বিশেষ সিসিটিভি। যেখানে সন্দেহভাজনের সঙ্গে ছবি মিলে গেলেই সঙ্গে সঙ্গে সতর্ক হতে পারে পুলিস। সব মিলিয়ে দিল্লি পুলিসের ২০ হাজার কর্মীকে নিরাপত্তার কাজে লাগানো হয়েছে।

রাত বাড়তেই বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে দিল্লির লাগোয়া হরিয়ানা, উত্তররপ্রদেশ সীমান্ত। সাদা পোশাকের পাশাপাশি অত্যাধুনিক আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে নিরাপত্তারক্ষীরা প্রস্তত যেকোনও ধরনের হামলা মোকাবিলার। লালকেল্লা থেকে রাইসিনা হিলের রাষ্ট্রপতি ভবন পর্যন্ত গোটা রাস্তা মুড়ে দেওয়া হয়েছে সিসিটিভি ক্যামেরায়।

উল্লেখিত পথের দুধারে উঁচু বাড়ির ছাদে মজুত পুলিস। নিরাপত্তারক্ষী। এনএসজি, স্পেশাল ওয়েপেনস অ্যান্ড ট্যাকটিক্স কমান্ডোদের নিরাপত্তায় ঘিরে ফেলা হয়েছে লালকেল্লা। স্নিফার ডগ মুহূ মুহূ শুঁকে যাচ্ছে লালকেল্লার প্রাচীর, যেখানে সকাল সাতটায় জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেবেন প্রধাননমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

রিমোট চালিত কোনও ড্রোন, প্যারা গ্লাইডার, মাই঩ক্রো লাইট এয়ারক্রাফটস, হট এয়ার বেলুন, প্যারা মোটরের মতো কোনও উড়ান সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ করা হয়েছে দিল্লির আকাশে।  স্বাধীনতা দিবসের দিন রাজধানীর কোথাও এ ধরনের কিছু নজরে এলেই সঙ্গে সঙ্গে খবর যাবে নর্থ ব্লকে,  ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের অফিসে।

দ্রুত সেই ড্রোন নামিয়ে দেওয়ার ব্যবস্থার পাশাপাশি যারা ওড়াবেন, তাদের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা করা হবে বলেই ঠিক হয়েছে। এমনিতে স্বাধীনতা দিবসে কড়াকড়ি থাকেই। তার ওপর কাশ্মীরে সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ বিলোপের পর প্রথম স্বাধীনতা দিবস পালন।

তাই নিরাপত্তার বহুস্তরে মুড়ে দেওয়া হয়েছে রাজধানী দিল্লি। তবে সাধারণ মানুষের মনে যাতে অহেতুক কোনও আতঙ্কের সঞ্চার না হয়, সেকথা মাথায় রেখে পরিবেশ স্বাভাবিক রাখারই চেষ্টা চলছে। দিল্লির মেট্রো সার্ভিস অন্যবার ১৫ আগস্ট প্রায় বন্ধই করে দেওয়া হলেও এবার তা হচ্ছে না।  স্বাধীনতা দিবসের পাশাপাশি রাখী বন্ধন উৎসব। সেকথা মাথায় রেখেই এই ব্যবস্থা। তবে কিছু নিয়ন্ত্রণ করা হচ্ছে। তবে মেট্রোস্টেশন সংলগ্ন পার্কিং  বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। দুপুর দুটোর পর তা খুলবে।

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

nineteen − sixteen =