হরকাতুল জিহাদ (হুজি) নেতা মুফতি হান্নানসহ তিন জঙ্গির ফাঁসির আদেশ বহাল

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

ঢাকা, ১৯ মার্চ: বাংলাদেশের জঙ্গি নেতা মুফতি আবদুল হান্নানসহ তিনজনের প্রাণদণ্ডের রায় পুনর্বিবেচনার আবেদন খারিজ করে দিল সর্বোচ্চ আদালত। বাংলাদেশের প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহার নেতৃত্বে তিন সদস্যের আপিল বেঞ্চ রবিবার এই রায় ঘোষণা করে। এই রায়ের ফলে হরকাতুল জিহাদ আলইসলামের এই তিন জঙ্গির দণ্ড কার্যকরে আর কোনও আইনি বাধা থাকল না।

তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ, ২০০৪ সালের ২১ মে সিলেটে হজরত শাহ জালালের মাজার প্রাঙ্গণে প্রাক্তন ব্রিটিশ হাইকমিশনার আনোয়ার চৌধুরির উপর গ্রেনেড হামলা চালিয়ে পুলিশসহ তিনজনকে হত্যা করেছিল অভিযুক্তরা।

আদালতের চূড়ান্ত বিচারেও ফাঁসির রায় বহাল থাকা বাকি দুই আসামি হল শরিফ শাহেদুল আলম ওরফে বিপুল ও দেলোয়ার ওরফে রিপন। নিয়ম অনুযায়ী আসামিরা এখন শুধুমাত্র তাদের কাজের জন্য অনুশোচনার কথা জানিয়ে রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষা চাইতে পারে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যাচেষ্টাসহ হরকাতুল জিহাদের ১৩টি নাশকতামূলক ঘটনায় শতাধিক ব্যক্তিকে হত্যার পিছনে মূল মাথা বলা হয় মুফতি হান্নানকেই। বাংলাদেশের গোপালগঞ্জের কোটালিপাড়ায় মুফতি হান্নানের বাড়ি। গওহরডাঙ্গা মাদ্রাসায় লেখাপড়া করেছে। ২০০৫ সালের ১ অক্টোবর ঢাকার বাড্ডা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

২০০০ সালের ২০ জুলাই সেই কোটালিপাড়াতেই শেখ হাসিনার সভামঞ্চের কাছে ৭৬ কেজি ওজনের বোমা পুঁতে রাখা হয়। মুফতি হান্নান ওই মামলার মূল আসামি। রমনা বটমূলে বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে বোমা হামলার ঘটনাতেও তার মৃত্যুদণ্ডের রায় দিয়েছে আদালত। গত ৬ মার্চ একটি মামলার শুনানি শেষে জঙ্গি নেতা মুফতি হান্নান ও তার সহযোগীদের আদালত থেকে কাশিমপুর কারাগারে ফিরিয়ে নেওয়ার পথে টঙ্গিতে প্রিজন ভ্যানে হামলা চালিয়ে তাদের ছিনিয়ে নেওয়ারও চেষ্টা হয়।

 

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

fourteen − seven =