হিযবুত তাহ্‌রীরের প্রধান সমন্বয়ক মহিউদ্দিন আহমেদসহ ছয়জনের বিচার শুরু

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

সন্ত্রাসবিরোধী আইনের মামলায় নিষিদ্ধ সংগঠন হিযবুত তাহ্‌রীরের প্রধান সমন্বয়ক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইবিএর সহযোগী অধ্যাপক মহিউদ্দিন আহমেদসহ ছয়জনের বিচার শুরু হয়েছে।মঙ্গলবার ঢাকার মহানগর দায়রা জজ কামরুল হোসেন মোল্লা ওই ছয় আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে বিচার শুরুর আদেশ দেন।

আগামী ২৪ অক্টোবর এই মামলার সাক্ষ্য গ্রহণের জন্য তারিখ ধার্য করেছেন আদালত।

২০১০ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক  মহিউদ্দিনসহ চারজনের বিরুদ্ধে উত্তরা মডেল থানায় সন্ত্রাসবিরোধী আইনে একটি মামলা করেছে পুলিশ। তদন্ত শেষে ২০১৩ সালের ৯ ফেব্রুয়ারি  মহিউদ্দিনসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেয় পুলিশ।

 ২০১০ সালের ২০ এপ্রিল মহিউদ্দিন গ্রেপ্তার হন। ২০১১ সালের ৩মে উচ্চ আদালত থেকে জামিন পান এই জঙ্গী নেতা। ২০১২ সালে এই জঙ্গী কারামুক্ত হন।সে সময়ে আত্মপক্ষ সমর্থন করে  তিনি দাবি করেন,হিযবুত তাহ্‌রীরের সঙ্গে তাঁর কোনো সংশ্লিষ্টতা নেই।

গত ১৫ জুলাই  নিষিদ্ধ ঘোষিত সংগঠন হিযবুত তাহ্রীর, বাংলাদেশের সাবেক প্রধান সমন্বয়কারী ও মুখপাত্র মহিউদ্দীন আহমেদ আবারো  নিজের বর্তমান অবস্থা ব্যাখ্যা করে একটি বিবৃতিতে দাবি করেন হিযবুত তাহ্রীরের সঙ্গে তাঁর কোনো সম্পৃক্ততা নেই।
মহিউদ্দীন আহমেদ ১৪ জুলাই লেখা সেই বিবৃতিতে বলেন, ২০০৯ সালের ২৩ অক্টোবর থেকে ২০১০ সালের ২০ এপ্রিল পর্যন্ত তিনি তাঁর বাসভবনে গৃহবন্দী ছিলেন। ২০১০ সালের ২১ এপ্রিল তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাঁকে ২০১০ সালের ফেব্রুয়ারি-মার্চে দায়ের হওয়ার বিভিন্ন মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়।
বিবৃতিতে মহিউদ্দীন বলেন, সব মামলায় আদালতের স্থায়ী জামিন পেয়ে তিনি ২০১২ সালের ফেব্রুয়ারিতে মুক্তি পান এবং পরবর্তী সময় কর্মস্থলে যোগদানপত্র দিয়েছেন।

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

three × five =