১৪৪ কোটি টাকা ব্যয়ে সাবমেরিন কেবল স্থাপন:এবার বিদ্যুৎ ও উচ্চগতির ইন্টারনেট পাবেন সন্দ্বীপবাসী

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

নিজস্ব সংবাদদাতা:  জুনেই জাতীয় গ্রিডের বিদ্যুৎ ও ইন্টারনেট পাচ্ছেন দেশের মূল ধারা থেকে বিচ্ছিন্ন সন্দ্বীপের জনগণ।সাবমেরিন কেবলের মাধ্যমে বিদ্যুৎ ও উচ্চগতির ইন্টারনেট সুবিধা পেতে যাচ্ছেন তারা। ১৪৪ কোটি টাকা ব্যয়ে প্রকল্পটি ২০১৪ সালের ১০ সেপ্টেম্বর একনেকে পাস হয়। সাবমেরিন কেবল নেটওয়ার্কের মাধ্যমে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট ও বিদ্যুৎ সংযোগ প্রকল্পের কাজ ৬০ শতাংশ শেষ করেছে পিডিবি।আসছে জুনেই সন্দ্বীপের প্রায় ১০ হাজার গ্রাহক বিদ্যুতের আওতায় চলে আসবে। বর্তমানে সন্দ্বীপের দুই হাজার গ্রাহককে জেনারেটরের মাধ্যমে প্রতিদিন সন্ধ্যা ৬টা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত গড়ে ১ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ সরবরাহ করে পিডিবি।দেশের  বিচ্ছিন্ন দ্বীপাঞ্চল সন্দ্বীপ এবার দেশের  মূলধারার সাথে যুক্ত হয়ে সমৃদ্ধ হবে বিদ্যুৎ ও উচ্চগতির ইন্টারনেট  সংযোগের মাধ্যমে।

পিডিবির প্রকল্পসংশ্লিষ্ট প্রকৌশলীরা জানিয়েছেন,  সন্দ্বীপে ১৬ ও সীতাকুণ্ডে ১০ কিলোমিটার হেডলাইন স্থাপনের কাজ শুরু হয়েছে। ৩৩ হাজার ভোল্টের দুটি কেবল বসানো হয়েছে। কেবলে তিনটি কোর ও একটি অপটিক্যাল ফাইবার রয়েছে।শুরুতে দৈনিক ১০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হবে।

পরিদর্শন শেষে এমপি মাহফুজুর রহমান মিতা বলেন, সরকার দেশের প্রতিটি অঞ্চলে বিদ্যুৎ সংযোগ পৌঁছে দিতে কাজ করছে। এর অংশ হিসেবে সন্দ্বীপে সাবমেরিন কেবল নেটওয়ার্কের মাধ্যমে বিদ্যুৎ সরবরাহ ব্যবস্থা চালু করতে যাচ্ছে। সন্দ্বীপ বিদ্যুতের আওতায় চলে আসার পর অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড ছাড়াও গভীর সমুদ্রবন্দর এবং সন্দ্বীপের আশপাশে জেগে ওঠা চরগুলোয় অর্থনৈতিক অঞ্চলের মতো শিল্পাঞ্চল স্থাপন করা সম্ভব হবে।

প্রকল্প এলাকা পরির্দশনকালে পিডিবি কর্মকর্তারা সাংবাদিকদের জানান, দক্ষিণ এশিয়ায় সাবমেরিন কেবলের মাধ্যমে বিদ্যুৎ সংযোগ প্রকল্প এটিই প্রথম। সন্দ্বীপ চ্যানেলের সি-বেড থেকে ১৮ ফুট গভীরে দুটি শক্তিশালী কেবল স্থাপন করা হয়েছে। ১৬ কিলোমিটার দীর্ঘ কেবল বসানো হচ্ছে। যার মাধ্যমে সেখানে একটি সাবস্টেশন ও দুটি ট্রান্সফরমার বসানো হবে।

সীতাকুণ্ড উপজেলার সমুদ্র উপকূলসংলগ্ন প্রকল্প এলাকা এবং সন্দ্বীপ চ্যানেলের স্থাপিত বার্জ জাহাজে সাবমেরিন কেবল স্থাপনের কাজ পরিদর্শন করেন পিডিবি চট্টগ্রাম দক্ষিণাঞ্চলের প্রধান প্রকৌশলী প্রবীর কুমার সেন। এ সময় স্থানীয় এমপি মাহফুজুর রহমান মিতা, প্রকল্পের উপপ্রকল্প প্রধান মো. ইকবাল করিম, চীনা ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান জেডটিটির প্রজেক্ট ম্যানেজার গুডউইন উপস্থিত ছিলেন।

 

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

9 − six =