৭২তম স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে ভারতের পশ্চিমবঙ্গে সম্প্রীতি রক্ষার শপথ মানববন্ধনে

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail
দেশের সার্বভৌমত্ব, গণতন্ত্র, ধর্মনিরপেক্ষতা, জাতীয় সংহতি, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি এবং বিভিন্ন জাতি, ভাষা ও বর্ণের ঐক্য-সংহতি প্রতিষ্ঠা করে জনগণের অর্জিত অধিকার রক্ষার লড়াই সংগ্রামে যে কোনও ধরনের আত্মত্যাগ করতে প্রস্তুত থাকার আরেকবার অঙ্গীকার ঘোষণা করলেন বামপন্থীরা। বুধবার ভারতের ৭২তম স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে সারা দেশের পাশাপাশি এই পশ্চিমবঙ্গেও বামপন্থী ও বাম সহযোগী দলগুলির পক্ষ থেকে মানব বন্ধনে হাজার হাজার মানুষ এই শপথ গ্রহণ করলেন।
সকাল ঠিক এগারোটায় মানববন্ধন কর্মসূচি পালন শুরু হয় কলকাতায়। দশ মিনিটের এই কর্মসূচি শেষে প্রত্যেক এলাকায় হয় সংক্ষিপ্ত সভা। কলকাতায় শ্যামবাজার মোড়, মৌলালি থেকে মল্লিক বাজার, হাজরা মোড়, যাদবপুর ৮বি বাসস্ট্যান্ড, খিদিরপুর মোড়, বেহালা ১৪ নং বাসস্ট্যান্ড এলাকায় মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়। আচার্য জগদীশচন্দ্র বসু রোডে এন্টালি বাজারের সামনে অস্থায়ী একটি মঞ্চের সামনে হয় বড় জমায়েত। উত্তর দিকে মৌলালি মোড় ছাড়িয়ে যায় মানুষের বন্ধন। আর দক্ষিণে তা বিস্তৃত হয় নোনাপুকুর ট্রামডিপো পর্যন্ত। মানববন্ধন কর্মসূচিতে লিখিত শপথ গ্রহণ করা হয় ‘…মার্কিন সাম্রাজ্যবাদের আধিপত্য থেকে মুক্ত হয়ে দেশের সার্বভৌমত্ব, গণতন্ত্র, ধর্মনিরপেক্ষতা, জাতীয় সংহতি, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি এবং বিভিন্ন জাতি, ভাষা ও বর্ণের ঐক্য-সংহতি প্রতিষ্ঠা করে জনগণের অর্জিত অধিকার রক্ষার লড়াই সংগ্রামে যে কোনও ধরনের আত্মত্যাগ করতে প্রস্তুত থাকবো’। এখানে এই শপথবাক্য পাঠ করান প্রবীণ সি পি ‌আই (এম) নেতা ও কলকাতার প্রাক্তন মেয়র প্রশান্ত চ্যাটার্জি।
শপথবাক্য পাঠ করার পরে সংক্ষিপ্ত সভায় এদিন এখানে সভাপতিত্ব করেন বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু। তিনি ছাড়াও বক্তব্য রাখেন সি পি আই (এম) রাজ্য সম্পাদক সূর্য মিশ্র, সি পি আই রাজ্য সম্পাদক স্বপন ব্যানার্জি, ফরওয়ার্ড ব্লক নেতা হাফিজ আলম সইরানি, আর এস পি-র রাজ্য সম্পাদক ক্ষিতি গোস্বামী, সি পি আই এম এল (লিবারেশন) বাসুদেব বসু, ওয়ার্কার্স পার্টির নেতা শিবনাথ সিনহা, পি ডি এস নেত্রী অনুরাধা দেব, সি পি আই এম এল (সন্তোষ রাণা) গোষ্ঠীর নেতা ইন্দ্র দস্তিদার, এন সি পি–র রাজ্য সম্পাদক নজরুল ইসলাম প্রমুখ।
এর বাইরেও উপস্থিত ছিলেন বামফ্রন্টের অন্যান্য শরিক দল ও গণতান্ত্রিক আরও কয়েকটি দলের নেতৃত্ব। মানববন্ধনে অংশ নিয়েছিলেন সি পি আই (এম) নেতা মদন ঘোষ, দীপক দাশগুপ্ত, রবীন দেব, অসীম দাশগুপ্ত, শ্রীদীপ ভট্টাচার্য, অনাদি সাহু, মানব মুখার্জি, নিরঞ্জন চ্যাটার্জি, কল্লোল মজুমদার প্রমুখ। ছিলেন পি ডি এস নেতা সমীর পূততুণ্ড, মার্কসবাদী ফরওয়ার্ড ব্লকের নেতা জয়হিন্দ সিংহ, সি পি আই (এম এল) নেতা কার্তিক পাল, আর এস পি নেতা মনোজ ভট্টাচার্য, সুকুমার মুখার্জি, আর সি পি আই নেতা মিহির বাইন, প্রবীর অধিকারী, বলশেভিক পার্টির পক্ষে প্রবীর ঘোষ, কৃষকসভার পক্ষে গৌর সাহা, সি আই টি ইউ নেতা রতন ভট্টাচার্য, রত্না দত্ত, এস এফ আই নেত্রী মধুজা সেন রায়, ডি ওয়াই এফ আই নেতা সায়নদীপ মিত্র, গণশক্তি পত্রিকার সম্পাদক অভীক দত্ত, মুখ্য সাংবাদিক অতনু সাহা, কালান্তর পত্রিকার সম্পাদক কল্যাণ ব্যানার্জিসহ বিভিন্ন বাম ও গণতান্ত্রিক গণসংগঠনের নেতৃত্ব।
বিমান বসু এখানে সংক্ষিপ্ত ভাষণে বলেন, এটা অত্যন্ত নির্মম দুঃখের হলেও সত্যি হলো দেশের ৭২তম স্বাধীনতা দিবস পালনের সময়েও কোটি কোটি পরিবার অনাহারে থেকে রাতে শুতে যান, অথচ তাঁদের চোখে ঘুম আসে না খিদের জ্বালায়। শিশুর পথ্য ও চিকিৎসা জোটে না। শিশু-কিশোরের জন্য নেই শিক্ষার আলো। শিক্ষিত যুব সম্প্রদায়ের সামনে নেই কর্মসংস্থান। নারীর লাঞ্ছনা হচ্ছে প্রতিদিন দেশের প্রতিটি প্রান্তে। বি জে পি শাসিত রাজ্যগুলিতে এর মাত্রা বেশি। হিন্দু-মুসলিম না খ্রিস্টান বিচারে ভাগাভাগির রাজনীতি তীব্র করতে চাইছে বি জে পি ও তার চালিকা শক্তি আর এস এস। আমাদের রাজ্যেও সেই বিপদ বাড়ছে। আদিবাসী, তপশিলি জাতি-উপজাতির ওপর হচ্ছে আক্রমণ। মিথ্যা মামলার পাহাড় জমছে। এসবই দমনপীড়নের প্রয়াস। মেহনতি মানুষও আক্রান্ত নানাভাবে। আমাদের প্রতিবাদ এর বিরুদ্ধে।
সূর্য মিশ্র বলেন, দেশের যাবতীয় সম্মান যা ছিল তা এখন ধূলিসাৎ হচ্ছে। বর্বর ধর্মান্ধ এক দক্ষিণপন্থী রাজনৈতিক শক্তি আর এস এস-কে সঙ্গে নিয়ে উগ্র হিন্দুত্বের প্রচার করে এক ধর্ম এক জাতির রাষ্ট্র গড়তে চাইছে। আমাদের সংবিধানের বহুত্ববাদের যে ঐতিহ্য তাকে বিনষ্ট করে ধর্মান্ধ শক্তিকে সামনে আনতে চাইয়ে। যে কোনও শুভবুদ্ধিসম্পন্ন ও গণতান্ত্রিক শক্তির সঙ্গে এই নিয়ে পদে পদে সঙ্গত বিরোধ বাধছে তাই। আমরা এই অশুভ শক্তি এবং রাজ্যের স্বেচ্ছাচারী সরকারের বিরুদ্ধে রয়েছি লড়াইয়ের ময়দানেই। আমাদের জন্য এই পথ ও কোটি কোটি মানুষই সম্বল। সামনে আমাদের এগিয়ে যেতেই হবে এই আত্মবিশ্বাস নিয়ে।

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

11 + eight =