৮ মুসলিম দেশ থেকে বিমানযাত্রার ক্ষেত্রে নয়া নিষেধাজ্ঞা আমেরিকার

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

ওয়াশিংটন, ২১ মার্চ : মধ্যএশিয়ার দশ বিমানবন্দর থেকে আমেরিকা যাওয়ার বিমানের কেবিনে নেওয়া যাবে না ল্যাপটপ, ট্যাবলেট। জঙ্গি হামলার আশঙ্কা থেকেই এমন নিষেধাজ্ঞা জারি করল আমেরিকা। স্মার্ট ফোন সঙ্গে রাখতে পারলেও, রাখা যাবে না তার চেয়ে বড় আকারের কিছুই। যাত্রা পথে সবই চালান করতে হবে বাকি মালপত্রের সঙ্গে। মার্কিন প্রশাসনের তরফে জানানো হয়েছে, আট দেশের নটি বিমান সংস্থাকে ৯৬ ঘণ্টা সময় দেওয়া হয়েছে মোবাইল ফোন বাদে ল্যাপটপ বা ট্যাবলেটের মতো অত্যাধুনিক যন্ত্র নিয়ে বিমানের কেবিনে যাত্রার উপর নিষেধোজ্ঞা জারি করতে।

শেষ বছরে বেশ কয়েকটি বিমানবন্দরে মারণ জঙ্গি হামলায় প্রাণ হারিয়েছিলেন অনেকেই। তেমন কোনও হামলার খবর আগেভাগে পাওয়ার কথা স্বীকার না করলেও, মার্কিন প্রশাসনের তরফে জানানো হয়েছে, যাত্রী সুরক্ষা আরও মজবুত করতেই এই নতুন ব্যবস্থা। এই নতুন নিয়মের আওতায় রয়েছে জর্ডন, মিশর, তুরস্ক, সৌদি আরব, মরক্কো, কাতার, আরব আমিরশাহীর ও কুয়েতে থেকে আসা বিমানগুলি।

বিমানে লিথিয়াম ব্যাটারি থেকে বিস্ফোরণের ঘটনা নতুন নয়। এর আগেও, ২০১১ সালের একটি পণ্যবাহী বিমানে আগুন লেগে যায় এই লিথিয়াম ব্যাটারি থেকেই। ২০১৬ সালে,ফেব্রুয়ারি দালো এয়ারলাইন্সের একটি বিমানে আত্মঘাতী হামলা চালায় এক জঙ্গি। হামলাকারী নাকি বিস্ফোরক লুকিয়ে রেখেছিল ল্যাপটপের ভিতর। প্রশাসন মনে করছে, যাত্রীর সঙ্গে লিথিয়াম ব্যাটারি দেওয়া কোনও যন্ত্র থাকলে বিস্ফোরণের সম্ভাবনা যতটা, বাকি মালপত্রের সঙ্গে থাকলে ততটা নয়। তাই এই ব্যবস্থা।

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

5 × one =