৯ হাজার বছরের পুরনো মুখের আদল ফেরালেন বিজ্ঞানীরা

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

এক কঠিন অপারেশন সারলেন মনোলিস পাপাগ্রিকোরিস। এক কিশোরীর মুখের আদল অপারেশন করে নিয়ে গেলেন ন’‌হাজার বছর আগে। সে সময় মানুষ কেবল গাছপালা বা কাঁচা মাংস খেত। তাই চোয়ালটা একটু বড়ো, মুখটা একটু রাগী দেখাচ্ছে। কিশোরীর নাম ডন।

১৯৯৩ সালে তার গ্রিসের থিওপেট্রা গুহা থেকে পাওয়া গিয়েছিল কিছু হাড়গোড়। সেগুলোকে সাজিয়েই পাওয়া যায় কিশোরী ডনের অবয়ব। বিজ্ঞানীদের ধারণা তাঁর বয়স ১৫ থেকে ১৮ হবে। এরপরে সিটি স্ক্যান এবং থ্রিডি প্রিন্টিং প্রযুক্তি ব্যবহার করে সিলিকন মডেলটি বানানো হয়েছে। মনে করা হচ্ছে ডন রক্তাপ্লতায় ভুগত। তার স্কার্ভি রোগ ছিল। গবেষকরা আরও বলছেন, তার নিতম্ব এবং হাঁটুর সমস্যা ছিল। তাতে ঘুরে বেড়াতে অসুবিধা হত। এই সমস্যাই তার মৃত্যুর কারণ বলে জানিয়েছেন গবেষকরা। রাগী মুখ নিয়ে অনেকের অসন্তোষ শুনে মজা করে মনোলিস পাপাগ্রিকোরিস বলেছেন, ‘ওই সময়ে কেউ রাগী ছিল না, তা হতেই পারে না।’‌ ‌ ‌‌

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

ten + seventeen =