বিজিএমইএ ভবন ভাঙতে আবেদনের ওপর আদেশ সোমবার পর্যন্ত মুলতবি

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

পোশাকশিল্প প্রস্তুত ও রপ্তানিকারক সমিতি (বিজিএমইএ) র রাজধানীর হাতিরঝিল এলাকায় অবস্থিত ভবন ভাঙতে ও তাদের কার্যালয় অন্যত্র সরাতে সংগঠনটির সময় চেয়ে করা আবেদনের ওপর আদেশ পিছিয়েছে।আগামী সোমবার পর্যন্ত বিষয়টি মুলতবি রেখেছেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন চার বিচারপতির আপিল বিভাগ।এক বছরের সময়ের আবেদন গ্রহণ করা হলে ভবিষ্যতে বিজিএমইএ আর সময় চাইবে না বলে আজ বুধবার আপিল বিভাগে মুচলেকা দাখিল করে সংগঠনটি।
তবে এই মুচলেকা অস্পষ্ট হওয়ায় বিজিএমইএর আইনজীবী আবেদনটি (মুচলেকা) সংশোধন করে দিতে আদালতের কাছে সময় চান। আদালত বিষয়টি আগামী সোমবার পর্যন্ত মুলতবি করেন। এই সময়ের মধ্যে বিজিএমইএকে সংশোধিত মুচলেকা জমা দিতে হবে।

২০১১ সালের ৩ এপ্রিল হাইকোর্টের রায়ে ১৬ তলার বিজিএমইএ ভবনকে ‘একটি ক্যানসার’ হিসেবে আখ্যায়িত করে এটি ভাঙার নির্দেশ দেওয়া হয়।
ভবন ভাঙতে ও কার্যালয় অন্যত্র সরাতে ভবিষ্যতে আর সময় চাইবে না—এ মুচলেকা দিতে মঙ্গলবার বিজিএমইএকে আদেশ দেন আপিল বিভাগ। আদেশে বলা হয়, এমন মুচলেকা পেলে এক বছর সময় চাওয়ার আবেদন আপিল বিভাগ বিবেচনা করবেন।ভবন ভাঙতে ও কার্যালয় অন্যত্র সরাতে এক বছর সময় চেয়ে বিজিএমইএর আবেদনের ওপর শুনানি ২৫ মার্চ শেষ হয়।

গত বছরের ৫ মার্চ আপিল বিভাগ বিজিএমইএ ভবন ভাঙতে রায় পুনর্বিবেচনা চেয়ে (রিভিউ) করা আবেদন খারিজ করে দেন। তখন ভবন ভাঙতে কত দিন সময় লাগবে, তা জানিয়ে আবেদন করতে নির্দেশ দিয়েছিলেন আদালত।
পরে বিজিএমইএ কর্তৃপক্ষ ভবন সরাতে তিন বছর সময় চেয়ে আবেদন করে।

সেই আবেদনের শুনানি নিয়ে গত বছরের ৮ এপ্রিল বিজিএমইএ ভবনটি ভাঙতে কর্তৃপক্ষকে সাত মাস সময় দিয়েছিলেন আপিল বিভাগ।
এরপরও বিজিএমইএ ফের আবেদন করায় পুনরায় ছয় মাস সময় দেন আপিল বিভাগ। গত বছরের ৩ ডিসেম্বর আদালত এই আদেশ দেন। আদালতের ওই সময় মঞ্জুরের পর এক বছর সময় চেয়ে আবেদন করে বিজিএমইএ কর্তৃপক্ষ।

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

four − two =